ফরিদপুরে ১২ বছরের কিশোরীকে বিয়ে, কারাগারে ৬০ বছরের বর

Marriage-photo-336.jpg

ফরিদপুরে গোপনে ১২ বছরের এক কিশোরীকে বিয়ে করেছেন ৬০ বছরের এক ব্যক্তি। পরে নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে এ ঘোষণা দেন তারা। পরে জেলার সদরপুরে হওয়া ওই বাল্যবিবাহের এ অপরাধে ওই ব্যক্তি, কিশোরীর মা, নানা ও নানিকে বিভিন্ন মেয়াদে জেল–জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। সদরপুর সদরে শুক্রবার (১৪ নভেম্বর) রাতে এ ঘটনা ঘটেছে।

নতুন জামাতা হিসেবে মোহাম্মদ ফকির গতকাল শুক্রবার রাতে ওই কিশোরীর বাড়িতে যান। তখন মেয়েটির অন্য স্বজন ও প্রতিবেশী তাকে আটক করে ইউএনও’র কাছে খবর দেন। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- কৃষ্ণপুর ইউনিয়নের মোহাম্মদ ফকির ও সদরপুর সদরের খবির তালুকদার, হালিমুন নেছা ও ফাতেমা বেগম।

ইউএনও পূরবী গোলদার বলেন, বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন, ২০১৭-এর বিভিন্ন ধারায় এই শাস্তি দেয়া হয়। আদালত মোহাম্মদ ফকিরকে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। জরিমানা অনাদায়ে তাকে আরও ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। এছাড়া কিশোরীর মা ফাতেমাকে ৬ মাস এবং নানা খবির ও নানী হালিমুনকে ১ মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। দণ্ডিত ব্যক্তিদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আদালত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ুয়া ওই কিশোরীর সাথে গত ২০ অক্টোবর গোপনে মোহাম্মদ ফকিরের বিয়ে হয়। বিয়েটি নিবন্ধন না করে তারা নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে এ ঘোষণা দেন। বাল্যবিবাহের এ ঘটনায় মেয়েটির বাবা বাধা দিলেও মেয়েটির মা, নানা ও নানির সহায়তায় এ বিয়ে হয়। শুক্রবার রাতে নতুন জামাতা হিসেবে মোহাম্মদ ফকির কিশোরীর বাড়িতে যান। তখন মেয়েটির অন্য স্বজন ও প্রতিবেশী তাকে আটক করে ইউএনও’র কাছে খবর দেন। রাত সাড়ে ৮টায় দিকে ইউএনও পূরবী গোলদার সেখানে গিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top