রেল আসলে কক্সবাজারের চেহারা পাল্টে যাবে

12462_me.jpg

স্টাফ রিপোর্টার, চকরিয়া :
দোহাজারী-কক্সবাজার রেললাইন প্রকল্পের নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করেছেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন এমপি। তিনি শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কক্সবাজার থেকে সড়ক পথে চকরিয়ায় আসেন। এরপর তিনি উপজেলার সাহারবিল, বিএমচর ও হারবাং ইউনিয়নের রেললাইন কাজের অগ্রগতি সরেজমিন পরিদর্শন করেন। কাজের অগ্রগতি দেখে তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া-পেকুয়ার সংসদ সদস্য জাফর আলম, চকরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ফজলুল করিম সাঈদী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামসুল তাবরীজ ও ওসি মো. হাবিবুর রহমান, সাহারবিল ইউপি চেয়ারম্যান মহসিন বাবুলসহ সরকারী-বেসরকারী কর্মকর্তারা।
রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, আগামী ২০২২ সালের জুনের মধ্যে কক্সবাজারে রেল যাবে। রেল যোগাযোগ স্থাপিত হলে কক্সবাজারের চেহারা পাল্টে যাবে। এতে পর্যটন শিল্পসহ সার্বিক বিষয়ে উন্নতি ও যোগাযোগ ব্যবস্থার আমুল পরিবর্তন হবে।
এদিকে মন্ত্রী শনিবার সকালে কক্সবাজারে ঝিলংজা হাজি পাড়ায় রেললাইন প্রকল্পের অধিগ্রহণকৃত চারজন ভূমি-মালিকদের মাঝে প্রায় এক কোটি টাকার ক্ষতিপূরণের চেক বিতরণ করেন।পরে “দোহাজারী-কক্সবাজার ডুয়েলগেজ রেললাইন প্রকল্পের কক্সবাজার প্রান্তে ঝিলংজা হাজি পাড়া,রামু ফতেখাঁরকুলসহ বিভিন্ন স্থানে কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেন।
এসময় রেলপথ মন্ত্রী মো: নুরুল ইসলাম সুজন এমপি বলেন. প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কক্সবাজারকে একটি পরিপূর্ণ আন্তর্জাতিকমানের পর্যটন নগরী হিসেবে গড়ে তোলার পরিকল্পনা নিয়েই কাজ করছেন।
তিনি আরও বলেন, ঢাকা থেকে কক্সবাজার রেল চলাচল শুরু হলে দেশের পর্যরটন শিল্পে ও অর্থনৈতিক খাতে এক বৈপ্লবিক পরিবর্তন ঘটবে। এ সময় প্রকল্প পরিচালক মো: মফিজুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো: আশরাফুল আফসার,রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ধীরেন্দ্রনাথ মজুমদার.ভুমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা শামীম হোসেন,সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহম্মদ মাহমুদউল্লাহ মারুফ,রেলওয়ের উর্ধতন কর্মকর্তাসহ প্রকল্প ও ভূমি অধিগ্রহণ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top