পেকুয়ায় পাষন্ড ছেলের পিটুনিতে মা বাবা আহত

Presentation1-72.jpg

পেকুয়া প্রতিনিধি:

কক্সবাজারের পেকুয়ায় আবদুল হামিদ নামের এক পাষন্ড সন্তানের পিটুনিতে গুরুতর আহত হয়েছেন মা-বাবা।

গত মঙ্গলবার দুপুরে টইটং ইউনিয়নের জান আলী মুড়া হাজ্বী বজল আহামদের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটলেও আজ সোমবার থানায় এজাহার জমা দেয়ায় ঘটনাটি জানাজানি হয়।

আবদুল হামিদের পিটুনিতে গুরুতর আহত ৮৯ বছর বয়সী তার বৃদ্ধ পিতা বজল আহমদ ও তার মা আলম শাইর (৭৫)।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে আহত বজল আহমদের মেয়ের স্বামী মো. কালু বলেন, খবর পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে শ্বশুর বজল আহমদ ও শাশুড়ি আলম শাইরকে উদ্ধার করি। পরে তাদের অবস্থা গুরুতর হওয়াতে চিকিৎসার জন্য পেকুয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করাই।

কর্তব্যরত চিকিৎসকরা আহত দুই জনের মধ্যে বজল আহমদের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে রেফার করেন বলে জানায় মো. কালু।

ভুক্তভোগী বজল আহমদ বলেন, ‘পরিবারের ছেলে-মেয়ে সাতজনের মধ্যে আবদুল হামিদ সবার ছোট। দীর্ঘ এক যুগ ধরে সে আমার বসতভিটা ও ফসলি জমি একা ভোগ দখল করার লক্ষ্যে আমার পরিবারের উপর নির্যাতন চালিয়ে আসছে। পর্যায়ক্রমে আমি, আমার স্ত্রী, পুত্র, কন্যাসহ সকলেই তার নিষ্ঠুর নির্যাতনের শিকার হয়েছি।’

১১ বছর আগে আবদুল হামিদ তার বড় ভাই আবদু রশিদকে কুপিয়ে পঙ্গু করে দিয়েছে বলেও জানায় নিজ সন্তানের হাতে নির্যাতিত এই ৮৯ বছর বয়সী বৃদ্ধ।

প্রতিবেশীরা জানান, ঘটনার দিন আব্দুল হামিদ বসতভিটা ও বাড়িঘর দখল করতে আসলে তার পিতা বজল আহমদ বাধা দেয়। ফলশ্রুতিতে হামিদ ক্ষিপ্ত হয়ে তার মা-বাবাকে নিষ্ঠুরভাবে পিটিয়ে জখম করে।

এদিকে এই ঘটনার বিষয়ে কাউকে জানালে আবদুল হামিদ প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়েছে বলে জানায় আরেক ভুক্তভোগী আলম শাইর।

এবিষয়ে পেকুয়া থানার ওসি কামরুল আজম বলেন, পিতা মাতাকে আহত করার ঘটনাটি মর্মান্তিক। গুরুত্বসহকারে বিষয়টি দেখা হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top