শহরের কচ্ছপিয়া পুকুর-খোরশেদ ভবনের সামনে হয়ে পল্লবী লেইন লকডাউন

এই বাড়িতেই উঠেছিল কক্সবাজারে প্রথম সনাক্ত করোনা রোগী

90033979_2231642233797291_5285102114089992192_o.jpg

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ টেকপাড়া পাহাড়তলী রোডের কচ্ছপিয়া পুকুরের মোড় হতে পশ্চিমে খোরশেদ ভবনের সামনে হয়ে পল্লবী লেইন লকডাউন ঘোষনা করা হয়েছে। মঙ্গলবার ২৪ মার্চ বেলা আড়াইটার দিকে কক্সবাজার সদর উপজেলার ইউএনও ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাহমুদ উল্লাহ মারুফের নেতৃত্বে এলাকাটি লকডাউন ঘোষনা করে লাল পতাকা টাঙ্গিয়ে দেওয়া হয়। এসময় ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আশরাফুল হুদা ছিদ্দিকী জামশেদ, কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি আবু মোঃ শাহজাহান কবির, ওসি (তদন্ত) খায়রুজ্জামান, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা সহ সংশ্লিষ্ট সকলে উপস্থিত ছিলেন। লকডাউন ঘোষিত এরিয়াতে পুলিশ মোতায়েন এবং মাইকিং করা হয়েছে।

করোনা ভাইরাস জীবাণু আক্রান্ত মহিলাটি তার সন্তান হারুনর রশিদ সহ সৌদি আরব থেকে ওমরা হজ্ব করে এসে গত ১৩ মার্চ দেশে এসে শহরের সিকদার মহলের সংলগ্ন পশ্চিম পার্শ্বের বাইলেইনে পল্লবী সড়কে তার কন্যার একটি ভাড়া বাসায় থেকেছেন। আবার সেখান থেকে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত মহিলার সন্তান কক্সবাজার সরকারি মহিলা কলেজের মোহাম্মদ সোলায়মানের শ্বশুরবাড়ির বিল্ডিং দক্ষিণ টেকপাড়া খোরশেদ ভবনের অক্সফোর্ড স্কুলস্থ বিল্ডিং (সাবেক এনএসআই অফিস) এ ছিলেন। সেখান থেকে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত মহিলাকে গত ১৮ মার্চ অসুস্থ অবস্থায় কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে তার রোগের লক্ষণে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত ধারণা করে স্যাম্পল টেস্ট করতে ঢাকার আইইডিসিআর এর ল্যাবে পাঠানো হয়। রিপোর্টে উক্ত মহিলার শরীরে করোনা ভাইরাস জীবাণু আক্রান্ত বলে নিশ্চিত হওয়া যায়।

সৌদী আরব থেকে করোনা ভাইরাস জীবাণু বহন করে আসা এই মহিলা হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগ পর্যন্ত যেসব স্থানে ছিলেন, সেসব এরিয়া জেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটি লকডাউন ঘোষনা করেছে।

এদিকে লকডাউন ঘোষনাকৃত এরিয়ার নাগরিকদের একটু কষ্ট হলেও এলাকাবাসীর সুস্বাস্থ্য রক্ষায় লকডাউনের বিধিনিষেধ মেনে চলার জন্য কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন সকলের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।
(ছবি: লোকমান হাকিম জিল্লু মিয়া ও সানজিদুল আলম সজিব।)

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top