হিমছড়ির কটেজে অস্ট্রেলিয়ান পর্যটককে ধর্ষণের চেস্টা, আটক ৪

USER_SCOPED_TEMP_DATA_orca-image-1008564650-768x669-1.jpeg

বিশেষ প্রতিবেদক:

কক্সবাজারের হিমছড়িতে এক অস্ট্রেলিয়ান পর্যটককে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। এই ঘটনায় কটেজ মালিকসহ ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

রামু থানার ওসি আবুল খায়ের জানায়, রবিবার হিমছড়ির মারমেইড বিচ রিসোর্টের সাথে লাগোয়া একটি কটেজে উঠেন অস্ট্রেলিয়ান নারী পর্যটক এলিসা বুকি (১৯)।
রবিবার রাতে কটেজে ঘুমানোর সময় ২ জন যুবক ওই কটেজে ঢুকে অস্ট্রেলিয়ান নারীকে ধর্ষনের চেষ্টা করে। ধর্ষকদের সাথে ধস্তধস্তি করে নারী পর্যটক কটেজ থেকে বের হয়ে চিৎকার শুরু করে। ওই সময় ধর্ষনের চেষ্ঠাকারীরা পালিয়ে যায়। ধস্তাধস্তিতে অস্ট্রেলিয়ান নারী আহত হয়। পরে ওই পর্যটক জরুরি নাম্বার ৯৯৯ এ ফোন করে পুলিশের সহায়তা চায়।
ওসি আবুল খায়ের জানান, ৯৯৯ এ ফোন পেয়ে হিমছড়ি পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই অস্ট্রেলিয়ান পর্যটককে উদ্ধার করে। ধস্তাধস্তিতে ওই নারী পর্যটক আহত হওয়ায় তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়।
রামু থানার ওসি আরো জানায়, এই ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মারমেইডের মালিক আনিসুল হক সোহাগের ভাই শামিমুল হক স্যামসহ ৫ জনকে আটক করা হয়েছে। তাদের জিঙ্গাসাবাদ চলছে।
এই বিষয়ে ওই অস্ট্রেলিয়ান পর্যটক বা অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশন মামলা করলে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। অন্যথায় পুলিশ বাদি হয়ে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
স্থানীয়রা জানান, রামু হিমছড়ির মারমেইড বিচ রিসোর্টের পাশেই বেশ কয়েকটি অনুমোদনহীন কটেজ গড়ে তোলো মারমেইডের মালিক আনিসুল হক সোহাগ ও তার ভাই শামিমুল হক স্যাম।
মারমেইড বিচ রিসোর্টের সাথে লাগোয়া এই কটেজটি মারমেইড হিসেবেই চেনে পর্যটকরা। কাগজে কলমে এটি মারমেইডের অংশ না হলেও এটি মারমেইড দ্বারা পরিচালিত। এই কটেজের খাওয়া থেকে শুরু করে সবকিছু মারমেইড থেকে সরবরাহ করা হয়। পর্যটকদের কাছেও এটি মারমেইড হিসেবে পরিচিত।
এই বিষয়ে জানতে চাইলে মারমেইড বিচ রিসোর্টের অপারেশন ম্যানেজার রানা কর্মকার জানান, অস্ট্রেলিয়ান নারী ধর্ষণের চেষ্টার ঘটনা সম্পর্কে তারা কিছু জানেনা। মারমেইডে এই ধরনের কোন ঘটনা ঘটেনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top