রামুর চাকমারকুলে মসজিদ-মাদ্রাসা ও ঘন জনবসতিপূর্ণ স্থানে

পোল্ট্রি খামার স্থাপনের চেষ্টায় এলাকায় উত্তেজনা

download-1.jpg

রামু প্রতিনিধি
রামু উপজেলার চাকমারকুলে মসজিদ-মাদ্রাসা ও ঘন জনবসতিপূর্ণ স্থানে পোল্ট্রি খামার স্থাপনের চেষ্টা চলছে। এনিয়ে এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসল্লীসহ সর্বস্তুরের জনমনে চরম ক্ষোভের স ার হয়েছে। এ ঘটনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমার কাছে পৃথক লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন মসজিদ-মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির নেতৃবৃন্দ এবং ক্ষুব্দ এলাকাবাসী।
চাকমারকুল ইউনিয়নের শাহমদেরপাড়া বায়তুচ্ছালাম কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি মাওলানা মোস্তাক আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক আবদুল অদুদ জানান, ওই এলাকার মৃত আমির হোছনের ছেলে মো. আবদুল্লাহ, আবদুল্লাহর ছেলে আতিকুল ইসলাম ও শামসুল হকের ছেলে মো. তুষার বায়তুচ্ছালাম কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ এবং ইক্বরা নূরানী ক্যাডেট মাদ্রাসার পাশে ও ঘন জনবসতিপূর্ণ স্থানে পোল্ট্রি খামার নির্মাণ কাজ শুরু করে। এসময় ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও আশপাশের পরিবেশের কথা ভেবে মসজিদ-মাদ্রাসার পক্ষে তারা এ পোল্ট্রি খামার অন্যস্থানে নির্মাণের অনুরোধ জানান। কিন্তু তাদের কথা তোয়াক্কা না করে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা পোল্ট্রি খামার নির্মাণ কাজ অব্যাহত রেখেছে।
তারা আরো জানান, এ স্থানে পোল্ট্রি খামার নির্মাণ হলে মসজিদে নামাজ আদায় এবং মাদ্রাসায় পাঠদান করা দূরুহ হয়ে পড়বে। খামারের বিষ্ঠা ও ময়লা-আবর্জনার দূর্গন্ধে এলাকার পরিবেশ বিপন্ন হয়ে উঠবে। এ ঘটনায় নিরুপায় হয়ে মসজিদ-মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটি এবং এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে গত ৯ ডিসেম্বর রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমার কাছে পৃথক লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার দ্রæত বিষয়টি সম্পর্কে অভিযুক্তদের সাথে আলাপ করে তাঁকে অবগত করার জন্য চাকমারকুল ইউপি চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দিয়েছেন।
চাকমারকুল ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার জানিয়েছেন, ইউএনও’র কাছে দেয়া অভিযোগ পেয়ে অভিযুক্তদের পোল্ট্রি খামার নির্মাণ কাজ বন্ধ রাখতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পরে ইউএনও’র উদ্যোগে উভয় পক্ষকে নিয়ে বিষয়টি সমাধানের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে।
এব্যাপারে জানতে চাইলে পোল্ট্রি খামার নির্মাণে অভিযুক্ত আতিকুল ইসলাম জানান, প্রথমে তাদের বাধা দেয়নি। এখন তদন্তে যে সিদ্ধান্ত হবে, তাই তিনি মেনে নেবেন। তিনি আরো বলেন, মসজিদ কমিটি অভিযোগ দিলেও এখন খামার নির্মাণে আপত্তি নেই বলে তাদের জানিয়েছেন।
চাকমারকুল ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা মেম্বার শাহিদা বেগম জানিয়েছেন, মসজিদ-মাদ্রাসার আর জনবসতি থাকায় ওই স্থানে কোনমতে পোল্ট্রি খামার স্থাপন করা সম্ভব হবে না। আর করলেও এলাকায় অপ্রীতিকর ঘটনার আশংকা রয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top