দক্ষিণ কোরিয়া উসং ইউনিভার্সিটিতে অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর হলেন কক্সবাজারের জিয়াউদ্দিন

Zia.jpg
প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
কক্সবাজারের কৃতিসন্তান ডক্টর জিয়াউদ্দিন দক্ষিণ কোরিয়া উসং ইউনিভার্সিটিতে অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর (রিসার্চ ট্রাক) হিসেবে যোগদানের উদ্দেশ্যে দেশ ত্যাগ করেছেন।
ডক্টর জিয়াউদ্দিন ঢাকার ব্র্যাক ইউনিভার্সিটিতে ২০১৫ থেকে   শিক্ষক হিসেবে কর্মরত। ওই ইউনিভার্সিটি তে তিনি সিএসই ডিপার্টমেন্টে এসোসিয়েট প্রফেসর হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন। এছাড়াও তিনি আরও দুটি দায়িত্ব পালন করেছেন। দায়িত্ব গুলো হল: আন্ডারগ্রাজুয়েট কো-অডিনেটর (সিএসই) এবং অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর অব ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি এসোর্স সেল (আইকিউএসি) ।
তিনি ব্রাক ইউনিভার্সিটির আগে ২০০৫ থেকে ২০১৪ পর্যন্ত চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক ইসলামী ইউনিভার্সিটি তে কর্মরত ছিলেন। তিনি একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কম্পিউটার এবং কমিউনিকেশন বিষয়ে ব্যাচেলর ডিগ্রী ও সুইডেনের ব্ল্যাক ইন ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি থেকে এমএস শেষ করে কুরিয়ার ইউনিভার্সিটি অব উলসান থেকে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং এর উপর পিএইচডি ডিগ্রী লাভ করেন। তাঁর ৫০ এরও বেশি রিসার্চ আর্টিকেল ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স এবং জার্নাল-এর পাবলিস্ট হয়। তিনি ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের আমন্ত্রণে ২০১৭ সালে স্টামফোর্ডশিয়ার ইউনিভার্সিটি ইউনাইটেড কিংডম এর ইনভাইটেড ফ্যাকাল্টি হিসেবে ভিজিট করেন। ২০১৭ সালে ব্র্যাকোতে শ্রেষ্ঠ রিসার্চ ফ্যাকাল্টি হিসেবে পুরস্কৃত হন। এ পর্যন্ত তিনি অনেক দেশ- সুইডেনসুইডেন, ডেনমার্ক, পোল্যান্ড,জার্মান, ইতালি, আয়ারল্যান্ড, ইউনাইটেড কিংডম , মালয়েশিয়া, সাউথ কোরিয়া, রিপাবলিক অফ চায়না ভিজিট করেন।
উল্লেখ্য, তিনি কক্সবাজার সদরের খরুলিয়া মকবুল সওদাগর পাড়ার আলহাজ্ব মৌলভী গোলাম কাদের এর সুযোগ্য মেঝ সন্তান। তার বড় ভাই সাইফুল আজম বাবুল এবং ছোট ভাই ওবাইদুল হক। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি বিবাহিত, তার স্ত্রী কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার মাহে জাবিন ও তিন কন্যা সন্তানের জনক।
তার এই সাফল্যের জন্য তিনি সকলের কাছে দোয়া প্রার্থী।  তিনি দেশ ও জাতির সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখতে চান।
আপনার মন্তব্য লিখুন
Top