ডিসি ও অর্থমন্ত্রীর নামে চাঁদাদাবী করা প্রতারক সোহেল আটক

FB_IMG_1566062014221.jpg

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শরনার্থী শিবিরে ত্রাণ কার্যক্রমের কথা বলে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন ও অর্থমন্ত্রী আ.হ.ম মোস্তফা কামালের নামে মোবাইল ফোনে চাঁদা দাবি করা প্রতারক সোহেল আহমদ শেখ (৩৮) নামক একজনকে আটক করেছে পুলিশ।
শনিবার ১৭ আগস্ট সন্ধ্যার দিকে তার ০১৮৫৮২৪৬৩১৬ নম্বর মোবাইল ফোন ট্রেকিং করে প্রতারক সোহেলকে গ্রেপ্তার করা হয়। বিষয়টি জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন, জেলা প্রশাসনের এনডিসি মোঃ শামীম হোসাইন ও সদর মডেল থানার ওসি ফরিদ উদ্দিন খন্দকার পিপিএম সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন। গ্রেফতারকৃত সোহেল আহমদ শেখ সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার দরগা রোড এলাকার মৃত করিম উদ্দিন শেখ ও আলেয়া বেগমের পুত্র। এনডিসি শামীম হোসাইন জানান, পুলিশ বাদী হয়ে প্রতারক সোহেল আহমদ শেখের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি ফরিদ উদ্দিন খন্দকার পিপিএম বলেন-জেলা প্রশাসন থেকে এ বিষয়ে এখনো কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। তবে গ্রেপ্তারকৃত সোহেল আহমদ শেখকে গ্রেপ্তারের পর থেকে থানায় রাখা রয়েছে। জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন সিবিএন-কে বলেন, প্রতারক সোহেল আহমদ অর্থমন্ত্রী ও জেলা প্রশাসক কক্সবাজারের পক্ষে পরিচয় দিয়ে অর্থ ও ত্রাণ সহায়তা চেয়ে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানে ফোন দিয়েছিল। বিভিন্ন জনকে মোবাইল ফোনে কল দিয়ে চাঁদা দাবি ও প্রতারণা করে আসছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শনিবার সন্ধ্যায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জেলা প্রশাসক আরও বলেন, যদি প্রশাসনের পরিচয় দিয়ে আর কেউ ফোন করে তাহলে আমাদের জানানোর জন্য অনুরোধ করছি। এদিকে, আটক প্রতারক সোহেল আহমদ শেখ প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে-গত কয়েক মাস থেকে সে এ ধরনের প্রতারণা করে আসছে।
প্রসঙ্গত, শনিবার ১৭ আগস্ট রোহিঙ্গা শরনার্থী ক্যাম্পে ত্রাণ কার্যক্রমের কথা বলে মোবাইল ফোন রবি’র ০১৮৫৮২৪৬৩১৬ নম্বর থেকে দেশের একটি ওষুধ কম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেনের নামে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবি করা হয়। দাবিকৃত চাঁদার টাকার জন্য ওই ওষুধ কম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালককে বার বার ধমকের সুরে তাগিদ দেওয়ার কারণে তাঁর সন্দেহের সৃষ্টি হয়।
বিষয়টি নিয়ে ওই ওষুধ কোম্পানিটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক কক্সবাজার জেলা বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমএ) সাধারণ সম্পাদক ডা. মাহবুবুর রহমানকে জানায়। পরে তৎক্ষণাৎ ডাঃ মাহবুবুর রহমান জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেনের সাথে যোগাযোগ করলে বিষয়টি প্রতারণা বলে নিশ্চিত হওয়া যায়। এরপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর হয়ে প্রতারক সোহেল আহমদ শেখকে আটক করে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top