‘‘মুখে রক্ত, ঠোঁটে কামড়ের দাগ, ক্ষতবিক্ষত যৌনাঙ্গ‘‘

66459524_2418416375150084_809783201391181824_n.jpg

আমিনুল ইসলাম হাসান, ফেসবুক কর্ণার

‘‘মুখে রক্ত, ঠোঁটে কামড়ের দাগ, ক্ষতবিক্ষত যৌনাঙ্গ‘‘

পূর্বপশ্চিমবিডিতে লেখা কলামের শিরোনাম দেখে মনে করেছিলাম কোন ক্ষুধার্ত হিংস্র জানোয়ার তার শিকার নাগালে পেয়ে ক্ষত বিক্ষত করে ভক্ষণের কাহীনি।
আসলে পড়ছিলাম শিশু সামিয়া আফরিন সায়মার উপর কিভাবে বর্বরতার চালানো হয়েছিল।

নার্সারিতে পড়তো সায়মা । যে শিশুটি হাসি-উল্লাস, খেলাধুলা আর আব্বু-আম্মুকে ডেকে ডেকে মাতিয়ে রাখতো ঘর। নিষ্পাপ সেই শিশুটির নিথর দেহ পড়ে আছে খালি ফ্লাটের কোনায়। মুখে রক্ত, ঠোঁটে কামড়ের দাগ, ক্ষতবিক্ষত যৌনাঙ্গ। কোনো এক নরপিশাচের শিকার হয়েছে সে। বিকৃত ও বিকারগ্রস্ত যৌন উন্মাদনায় হায়েনার মতো ঝাঁপিয়ে পড়েছে শিশুটির ওপর। কুড়ে কুড়ে ছিড়ে খেয়ে গেলো অসভ্য জানোয়ার।

লেখাটিতে তিনি পুরুষজাতকে ঘৃণা ভরা আক্ষেপের সহিত লিখেন –
নিজেকে ধিক্কার দিলাম। নিজেকে পুরুষ হিসেবে ভাবতে ভীষণ লজ্জা অনুভব করছিলাম।

আজকে মিডিয়ার মাধ্যমে শিশু সায়মার বাবা আব্দুস সালাম দেশবাসীর কাছে একটি মাত্র আবেদনে করেছেন।
সেটি জানোয়ারটির ফাঁসি চেয়ে নয়। তার ক্ষতিপূরণ চেয়েও নয়। নয় সবার মত সেও শান্তনার একটি চাকরির ।

তার আবেদন একটায়-
‘‘ আপনাদের যাদের মেয়ে রয়েছে তাদেরকে এমন পশুসুলভ আচরণ থেকে কীভাবে দূরে রাখা যায় তা একটু ভেবে দেখবেন। আপনার সন্তানদের রক্ষা করার চেষ্টা করবেন‘‘

সায়মার বাবা আব্দুস সালাম সা-হে-ব আমরা দুঃখিত ! আপানর আবেদন কোন প্রয়োজন আমাদের নেই ! আমার মেয়েকেতো ক্ষুধার্ত হিংস্র জানোয়ার, মুখে রক্ত, ঠোঁটে কামড়ের দাগ, ক্ষতবিক্ষত যৌনাঙ্গ করেনি । আমার এসব চিন্তা করার , সচেতন হওয়া দরকার কি?!

আমরাতো চেতনাহীন! আমাদের বিবেকের চার দেয়ালে ঘুটঘুটে অন্ধকার। আমরা কখন জাগব, কি জানি! ঘুমন্ত মহাশক্তির আড়ালে আমাদের বিবেক দণ্ডায়মান।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top