চকরিয়ায় মাংসের মূল্য নির্ধারণ করলেন প্রশাসন

chakaria-matamuhori-seto-20-4-19-1.jpg

মনছুর আলম, চকরিয়া:

পবিত্র শবে বরাত ও মাহে রমজান উপলক্ষে চকরিয়া উপজেলা সদরে মাছ মাংসসহ সব ধরণের নিত্যপণ্যের বাজার মনিটরিংয়ে শুদ্ধি অভিযানে নামলেন ইউএনও নুরুদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমান। বিশেষ করে মাংসের দোকানে অভিনব পন্ধায় ক্রেতাদের কাছ থেকে অতিরিক্ত দাম ও ওজনের কারচুপির করার অভিযোগ পেয়ে গতকাল শনিবার সকালে চকরিয়া শহরে অভিযান পরিচালনা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও ইউএনও শিবলী নোমান। এসময় আদালত নানা অপরাধের দায়ে সাত দোকানীকে ৩৯ হাজার টাকা জরিমানা করেছে।

আদালতের পেশকার রতন কান্তি দাশ বলেন, পবিত্র শবে বরাত ও মাহে রমজান উপলক্ষে বাজার দর নিয়ন্ত্রনে রাখার অংশহিসেবে গতকাল চকরিয়া পৌরশহরের চিরিঙ্গা সোসাইটিতে অভিযান পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও ইউএনও নুরুদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমান। ওইসময় আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেট শহরের মাংসের দোকানে গিয়ে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন পৌরসভার তালিকার বাইরে মাংস বিক্রিতে অতিরিক্ত টাকা নেয়া হলে এবং ওজনের কারচুপি করা হলে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, অভিযান পরিচালনাকালে আদালত ফুটপাত দখল, অবৈধ পাকিংসহ নানা অপরাধের দায়ে অন্তত সাতটি দোকান মালিককে ৩৯ হাজার টাকা জরিমানা করেন। একই সঙ্গে মাছ মাংসসহ সব ধরণের নিত্যপণ্যের বাজার স্থিতিশীল রাখতে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী ও ব্যবসায়ী নেতাদের নির্দেশ দেন।

চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী বলেন, মাংস ব্যবসায়ী সমিতির নেতৃবৃন্দের সঙ্গে আলাপের ভিত্তিতে পবিত্র শবে বরাত ও মাহে রমজান উপলক্ষে মাংস বিক্রিতে মুল্য তালিকা নির্ধারণ করা হয়েছে। তালিকা অনুযায়ী প্রতিকেজি (গরু মহিষ) হাড়বিহীন মাংস ৫৫০ টাকা, আড়াইশত হাড়সহ প্রতিকেজি (গরু মহিষ) মাংস ৫০০ টাকা ও ছাগলের মাংস প্রতিকেজি ৬৫০ টাকা বিক্রি করতে পারবে।

তিনি বলেন, মাংস বিক্রিতে ডিজিটাল স্কেল পরিমাপ ব্যবহার করতে হবে। সনাতন পদ্ধতির পাল্লা পরিমাপে ব্যবহার করা যাবেনা। আইন লঙ্ঘন করলে সংশ্লিষ্ট মাংস দোকানীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যাজিষ্ট্রেট নুরুদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমান বলেন, ভোক্তা সাধারণের অভিযোগের প্রেক্ষিতে পবিত্র শবে বরাত ও মাহে রমজান উপলক্ষে বাজার মনিটরিং জোরদার করা হয়েছে। এরই অংশহিসেবে গতকাল চকরিয়া শহরে প্রথম অভিযান পরিচালনা করা হয়।

তিনি বলেন, অভিযানে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের সর্তক সংকেত দেয়া হয়েছে। বিশেষ করে মাংস বিক্রিতে অতিরিক্ত মুল্য নেয়া এবং ওজনে কম দেয়া হলে কঠোর আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে বিষয়টি তাদেরকে জানিয়ে দেয়া হয়েছে। পুরো রমজানজুড়ে বাজার মনিটরিংয়ে আদালতের অভিযান চলবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top