১৩ বছর আত্মগোপনে থেকেও বাঁচতে পারলেন না তিনি!

55508061_1304312746386602_4268877276642279424_n-54.jpg

দীর্ঘ ১৩ বছর ধরে নাম বদল করে পুলিশের চোখ এড়িয়ে আত্মগোপনে ছিলেন মোছাম্মৎ রাশেদা বেগম (৫০)। কিন্তু শেষ পর্যন্ত নিজেকে বাঁচাতে পারলেন না তিনি। সোমবার দিবাগত রাতে বগুড়ার আদমদীঘি থানার টিকরপাড়া থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করেছে নওগাঁর বদলগাছি থানা–পুলিশ।

বদলগাছি থানা সূত্রে জানা গেছে, ২০০৬ সালে বগুড়ায় ফেনসিডিলসহ গ্রেপ্তার হয়েছিলেন রাশেদা। তখন তাঁর বিরুদ্ধে বগুড়া থানায় একটি মামলা করা হয়েছিল। কিন্তু জামিনে ছাড়া পেয়েই লাপাত্তা হয়ে যান রাশেদা। পরবর্তী সময়ে বগুড়ার একটি আদালত তাঁকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয় তাঁকে। কিন্তু অনেক খুঁজেও পুলিশ রাশেদাকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

রাশেদার সাবেক স্বামী ফরিদ মণ্ডলকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পারে, পলাতক রাশেদা বগুড়ার সান্তাহারে মাদক ব্যবসা চালাচ্ছেন। এরপর সোমবার দিবাগত রাতে বদলগাছি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালালউদ্দিনের নেতৃত্বে এসআই শাহিন চৌধুরী ও মাহবুবুর রহমান রাশেদা বেগমকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন।

বদলগাছি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জালালউদ্দিন বলেন, রাশেদা বেগম ২০০৬ সালে ফেনসিডিলসহ গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। তিনি নিজের নাম পাল্টে টুলি বেগম রেখে বগুড়ার সান্তাহারে মাদক ব্যবসা চালাচ্ছিলেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top