চৌফলদন্ডীতে মাদ্রাসা ছাত্রীকে কুপিয়েছে প্রতিপক্ষ

thecmbd-17.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক:
অস্ত্রধারি সন্ত্রাসীরা এবার কক্সবাজারে এক মাদ্রাসা ছাত্রীকে কুপিয়ে জখম করেছে। সদর উপজেলার চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের ঘোনার পাড়ায় এ ঘটনা ঘটেছে। রক্তাক্ত অবস্থায় স্থানীয় নতুন মাহাল রহমানিয়া মাদ্রাসার ৭ম শ্রেনীর ছাত্রী হাবিবা নুর নার্গিস (১৪) সহ আহত অন্যান্যদের এলাকাবাসি উদ্ধার করে প্রথমে কক্সবাজার সদর ও পরে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

পুলিশ ও এলাকাবাসি জানায় ইউনিয়নের ঘোনার পাড়ার মৃত মোস্তফার মেয়ে জাহানারা বেগমের দায়ের করা আদালতের সি আর মামলা নং ৩২০/২০১৯ এর তদন্তের জন্য পিবিআইর এস আই জাফর আলমসহ একটি দল গত শনিবার চৌফলদন্ডী যায়। মামলার তদন্তকালে স্থানীয় লোকজনের স্বাক্ষ গ্রহন শেষে ঐ তদন্ত কর্মকর্তারা ফিরে যাওয়ার সময়ে উক্ত মামলার এজাহারভুক্ত আসামীরা স্বাক্ষীদের উপর অর্তকিত হামলা চালায়। এ সময় মাদ্রাসা থেকে বাড়ি ফেরার পথে ঘটনা স্থলে পৌঁছলে চৌফলদন্ডীর নতুন মাহাল রহমানিয়া মাদ্রাসার ৭ম শ্রেনীর ছাত্রী হাবিবা নুর নার্গিস (১৪)কে মাথায় কুপিয়ে জখম করে সন্ত্রাসীরা। এ ছাড়াও হামলায় রবিউল আলম (৪৫) তৌহিদুল করিম (২৫)সহ ৫ জন গুরুতর আহত হয়।

ঘটনার বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে প্রত্যক্ষদর্শী পিবিআই কর্মকর্তা জাফর আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন হামলাকারিরা অত্যান্ত বর্ববরতার পরিচয় দিয়েছে। এ রকম সন্ত্রাসী এলাকা তিনি আর কোথাও দেখেনি বলে জানান।

এদিকে এ ঘটনায় কক্সবাজার সদর থানায় ৫ নং ওয়ার্ডের ঘোনার পাড়ার ১০ জনকে অভিযুক্ত করে এজাহার দায়ের করা হয়েছে। একই এলাকার মৃত মোহাম্মদ মোস্তফারের পুত্র বজল আহম্মদ বাদী হয়ে দায়ের করা মামলায় ছৈয়দ আলমের ৩ পুত্র যথাক্রমে শামশুল আলম,মোহাম্মদ আলম,ফরিদুল আলমসহ আরও চিহ্নিত ৭ জনসহ ১০ জন আসামি করা হয়। মামলার বাদি বজল জানান অভিযুক্তরা জিআর-১০৯/১৫,সিআর-২৭০/১৯ ও জিআর ৩৬০/১৯সহ আরও অসংখ্য মামলার পলাতক আসামি। তারা যাথাযথ আইনের আওতায় না আসায় এলাকায় বেপরোয়া হয়ে একের পর এক সন্ত্রাসী কর্মকান্ড সংঘঠিত করছে। স্থানীয় গ্রামবাসিরা মাদ্রাসা ছাত্রী নার্গিসের উপর হামলার তীব্র নিন্দা ও হামলাকারিদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top