মসজিদে হামলার ন্যায়বিচার চাইলেন এরদোয়ান

dhaka-16.jpg

নিউল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে হামলা চালিয়ে ৪৯ মুসলিমকে হত্যা এবং ৪৮ জনকে গুরুতর আহত করার ঘটনার ন্যায়বিচার দাবি করলেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোয়ান।

গতকাল শুক্রবার জুমার নামাজের সময় চালানো ওই হামলাকে তুর্কি প্রেসিডেন্ট ‘হত্যাযজ্ঞ’ অভিহিত করেন এবং দুটি হামলার সঙ্গে জড়িতদের জবাবদিহিতার আওতায় আনতে নিউজিল্যান্ড সরকারের প্রতি আহ্বান।

দেশটির সরকারি গণমাধ্যম আনাদলু বলছে, শনিবার উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় তেকিরদাগ প্রদেশে এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

মসজিদে হামলার মূল নায়ক ২৮ বছর বয়সী অস্ট্রেলীয় বংশোদ্ভূত উগ্রপন্থী ব্রেনটন টারান্ট হামলার আগে অনলাইনে যে কথিত ইশতেহার প্রকাশ করেছে- এদিন তার তীব্র নিন্দা জানান তুর্কি প্রেসিডেন্ট। তথাকথিত ওই ইশতেহারে সে মুসলিম ও অভিবাসনবিরোধী উস্কানি দিয়েছে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করা সেই ঘোষণায় টারান্ট দুই বার তুরস্ক সফরের কথা বলেছে।

বিষয়টি উল্লেখ করে এরদোয়ান বলেন, ‘সে প্রথমবার ইস্তাম্বুলে তিন দিনের এবং দ্বিতীয়বার ৪০ দিন সফর করেছে। (এর পেছনে) তার যোগসূত্র কী? আমরা তা খুঁজে বের করব।’

তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘[পশ্চিমে প্রবেশ করলে আমরা তোমাদের মেরে ফেলব, আমরা ইস্তাম্বুলে আসব এবং সকল মসজিদ-মিনার ধ্বংস করব]- এসব বলে সে বেকুবের মতো আচরণ করেছে। […] কোথায় নিউজিল্যান্ড আর কোথায় তুরস্ক?’

মসজিদে হামলাকারীর উল্লেখ করে এরদোয়ান বলেন, ‘একজন খুনি কীভাবে অর্ধ বিশ্ব তথা মুসলিম ও তুর্কিদের বিরুদ্ধে এ ধরনের অসুস্থ মানসিকতা পোষণ করতে পারে।’

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top