বর্ষা নামলে কোন দুর্ভোগ পোহাতে হয় আল্লাহই ভাল জানেন

-22.jpg

মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

সোমবার ২৫ ফেব্রুয়ারি ভোরে কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের রেকর্ড অনুযায়ী মাত্র ১২ মিঃ মিঃ বৃষ্টিপাত হয়েছে। আর এই বৃষ্টিতেই কক্সবাজার শহরের বাজারঘাটা, বৌদ্ধমন্দির সড়ক, গোলদীঘির উত্তর পাড়, বিকে পাল সড়কের উত্তরাংশ, এড.ছামাতুল্লাহ সড়ক, চাউল বাজার সড়ক, বড়বাজার সহ বিস্তৃর্ণ এলাকা ড্রেনের পঁচা ময়লা-আবর্জনা ও পঁচা পানিতে সয়লাব হয়ে গেছে। শুকনো মওসুমের শুরুতে এ রকম সামান্য বৃষ্টি শুষ্ক মাটি ভাল করে ভিজেওনা। তারপরও রাস্তার উপর ড্রেনের পানি ও ময়লা আবর্জনা কেন? সোমবার সকালে শহরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে-সকল ড্রেন গুলো ময়লা আবর্জনায় পরিপূর্ণ রয়েছে। এ অবস্থা দেখে সোমবার সকালে একজন পৌর নাগরিকের মন্তব্য হলো-এটা তো পৌর কর্তৃপক্ষের মহানভূবতা। ঐ নাগরিকের মতে, ড্রেন গুলো যেন পাবলিক ডাষ্টবিন। বৃষ্টির পানি ড্রেন হয়ে যেতে নাপেরে রাস্তার উপর দিয়ে যাচ্ছে। পঁচা ময়লা-আবর্জনা গুলো পানির ঠেলায় নিজ দায়িত্বে রাস্তায় উঠে রাস্তা গুলো জবরদখল করে ফেলেছে। অবস্থা দেখে মনে হয়েছে-পৌর কর্তৃপক্ষের যেন কোন দায় দায়িত্ব নেই। শহরের দক্ষিণ ঘোনার পাড়া সমাজ কমিটির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মোঃ আবুল হোছন বলেন-সামান্য বৃষ্টিতে পানি ও ময়লা আবর্জনায় রাস্তা গুলো সয়লাব হয়ে গেছে, পুরো বর্ষা মওসুম নামলে পৌর নাগরিকদের কিভাবে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়, সেটা আল্লাহই ভাল জানেন। তিনি বলেন, পৌরসভার ড্রেনগুলো একদিকে দখল হয়ে সংকীর্ণ পানি চলাচলের পথ বন্ধ হয়ে যাচ্ছে, অন্যদিকে, ড্রেন গুলো নিয়মিত পরিস্কার নাকরায় পৌর নারগিকদের এ দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top