চট্টগ্রামে বিমান ছিনতাই চেষ্টা : প্রত্যক্ষদর্শী যাত্রীর বয়ান

Presentation1-109.jpg

ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম হয়ে দুবাইগামী বাংলাদেশ বিমানের একটি উড়োজাহাজ ছিনতাইয়ের চেষ্টা করা হয়েছে। তবে বিমান থেকে নিরাপদে সব যাত্রীকে বের করে নিয়ে আসা সম্ভব হয়েছে। এদিকে, বিমানটি ছিনতাইয়ের চেষ্টার পরপরই সেটি ঘিরে ফেলেছে পুলিশ ও র‌্যাব। ভেতরে একজন সন্দেহভাজন অস্ত্রধারী পাইলটসহ দুই ক্রুকে জিম্মি করে রেখেছে বলে জানা গেছে। তবে যাত্রীদের সবািইকে নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়েছে।

রোববার (২৪ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় বিজি-১৪৭ নং ফ্লাইটটি ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম হয়ে দুবাই যাওয়ার কথা ছিল।

ঘটনার সময় বিমানবন্দর এলাকায় কিছুটা আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। প্রত্যক্ষদর্শী এক গাড়ির চালক বলেন, ‘আমি দেখছিলাম আমার বস এসেছে কিনা। দেখলাম, ইমার্জেন্সি গেট খোলা। ভাবছিলাম কোনো আগুনের ঘটনা ঘটতে পারে। এরপর দেখলাম, ইমার্জেন্সির ওখান দিয়ে যাত্রীরা লাফিয়ে লাফিয়ে বের হয়ে আসছে। ভেতর থেকে শোনা গেল যে, ওরা স্যুট করেছে।’

ওই বিমানেই অনবোর্ড যাত্রী ছিলেন সংসদ সদস্য এবং জাসদ নেতা মঈনুদ্দিন খান বাদল। তিনি বলেন, ‘আমি দেখছি বিমানটাকে। একজন বাঙালি যাত্রী গুলি করে। ওই সময় যাত্রীরা বের হয়ে আসেন। সবাই নিরাপদেই বের হন। পাইলট আমার সঙ্গে এসেছিল। সে বলেছে, একজন স্যুট করেছিল। পাইলট তাকে বুঝানোর চেষ্টা করেছে। ছিনতাইকারী বলেছে, সে শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলতে চায়।’

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সিভিল এভিয়েশন সচিব মহিবুল হক জানান, বিমানটির মধ্যে সন্দেহভাজন একজন অস্ত্রধারী পাইলটসহ দুইজন ক্রুকে জিম্মি করে রেখেছে।

ঘটনার পরপরেই বিমানবন্দর বন্ধ করে দেয়া হয়। শিগগিরই বিমান বন্দরে প্রবেশ করেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top