ইজতেমা বন্ধের দাবিতে টেকনাফে বিক্ষোভ মিছিল, প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন

bnp-nazrul-20181228214935-4.jpg

আব্দুস সালাম, টেকনাফ:

পঞ্চগড়ে আহমদীয়া মুসলিম তথা কাদিয়ানীদের তিনদিনের ইজতেমা বন্ধে টেকনাফ উপজেলা কুওমী মাদ্রাসা পরিষদসহ সর্বস্তরের জনতার বিক্ষোভ মিছিল, প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।১৩ ফেব্রুয়ারি বুধবার দুপুরে টেকনাফ উপজেলা কুওমী মাদ্রাসা পরিষদের ব্যানারে টেকনাফ পৌরসভার ঈদগাঁও মাঠ থেকে কক্সবাজার কুওমী মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড (ইত্তেহাদ) এর মহাসচিব ও টেকনাফ আল-জামিয়া-আল ইসলামিয়ার প্রধান পরিচালক মুফতি কিফায়তুল্লাহ শফিকের নেতৃত্বে টেকনাফ পৌরসভার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে উপজেলা শহীদ মিনারের সামনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা মুফতি কিফায়তুল্লাহ শফিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন, সাবরাং বড় মাদ্রাসার পরিচালক মুফতি নুর আহমদ, টেকনাফ সাংবাদিক ইউনিটির সভাপতি মাওঃ সাইফুল ইসলাম সাইফী, মাওঃ সেলিম উল্লাহ প্রমুখ। এ সভা পরিচালনা করেন মাওলানা ইলিয়াছ ফারুক।

সভায় বক্তরা বলেন, পঞ্চগড়ে কাদিয়ানীদের তিনদিনের ইজতেমা বন্ধ, একই সাথে কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষণা করতে হবে। তা না হলে টেকনাফ থেকে তেতুাঁলিয়া অভিমুখী লংমার্চ করা হবে। তারা আরও বলেন, কাদিয়ানি স¤পদায় ইহুদিদের এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য ইসলামের নাম ভঙ্গিয়ে ইসলাম বিরোধী ষড়যন্ত্র করছে। তারা মুসলমানদের ঈমান নষ্ট করার সুদূর প্রসারী পরিকল্পনা নিয়ে দেশে দীর্ঘকাল যাবৎ অপতৎপরতা চালিয়ে যাচেছন। কাদিয়ানীরা ইসলাম ধর্মের অনেক মৌলিক আকীদা অস্বীকারের কারণে অমুসলিম ও কাফের।”

এদেশের সংবিধান অনুযায়ী কাদিয়ানীরা সংখ্যালঘু হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিস্টান ধর্ম্বালম্বীদের মত বাংলাদেশের নাগরিকের সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করবে। দেশের প্রচলিত আইন অনুসারে অন্যান্য ধর্মের অনুসারীরা যতটুকু নাগরিক অধিকার ও ধর্মপালনের স্বাধীনতা ভোগ করে থাকে, ততটুকু কাদিয়ানীরা ভোগ করুক। তবে তা নিজস্ব ও স্বতন্ত্র ধর্মীয় পরিচয়ে হতে হবে, মুসলমান পরিচয়ে নয় বলে জানিয়েছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top