ইজতেমায় বয়ানে উসকানিমূলক বক্তব্য দেয়া যাবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Presentation1-39.jpg

নেউজ ডেস্ক।।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ইজতেমায় বয়ানে বা সম্মুখে কেউ কারও বিরুদ্ধে উসকানিমূলক বক্তব্য দিতে পারবেন না। ইজতেমা নিয়ে ফেসবুকে বা অন্য কোনো মাধ্যমে কোনো রূপ অপপ্রচার চালানো হলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর ব্যবস্থা নেবে।

বুধবার দুপুরে বিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে টঙ্গীতে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের টঙ্গী আঞ্চলিক কার্যালয় প্রাঙ্গণে ইজতেমার সর্বশেষ প্রস্তুতি নিয়ে ফলোআপ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী আগের চেয়ে অনেক দক্ষ। যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় তারা সর্বদা প্রস্তুত রয়েছে। ইজতেমার দুই পক্ষকে তাদের ৬ দফা ও ১০ দফা মেনে চলতে হবে। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ইজতেমা সম্পন্ন করার জন্য উভয়পক্ষকে ধৈর্য ধরে সহনশীল আচরণ করতে হবে। এ জন্য তিনি সবার সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

গাজীপুর জেলা প্রশাসন আয়োজিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকটে শেখ মো. আব্দুল্লাহ, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এবং গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. জাহাঙ্গীর আলম।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মো. আব্দুল্লাহ বলেন, শান্তি ও শৃঙ্খলার সঙ্গে ইজতেমা সম্পন্ন করতে হবে। ইজতেমা আয়োজনের জন্য উভয়পক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। ইজতেমা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে সরকার সব রকম সহযোগিতা করে যাচ্ছে। ইজতেমার মূল আয়োজন ইজতেমা কর্তৃপক্ষ করছে। সরকার কেবল তাদের নিরাপত্তাসহ সার্বিক দিকে সহযোগিতা করছে। ইজতেমায় কারা আসবেন আর কারা আসবেন না সেটা ইজতেমা কর্তৃপক্ষই সিদ্ধান্ত নেবেন। দুই পক্ষ তাদের যে তালিকা দেবেন সে তালিকা অনুসারে বিদেশি মুসল্লিদের ভিসা দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, অল্প সময়ের মধ্যে ইজতেমা আয়োজনের সব প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। সবার সহযোগিতায় এবার সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ইজতেমা সম্পন্ন হবে। ইজতেমায় আগত সকল মুসল্লিদের নিরাপত্তার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সজাগ ও সতর্ক রয়েছে।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীরের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. জাবেদ পাটোয়ারী, র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ, গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান, ঢাকা উত্তরা জোনের ডিসি (ট্রাফিক) প্রবীর কুমার রায়, গাজীপুরের পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার, ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক (অপারেশন মেরামত) মেজর একেএম শাকিল নেওয়াজ, ইজতেমার মুরব্বি মাওলানা জুবায়েরপন্থী প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান, সা’দপন্থী মাওলানা ওয়াসিফুল ইসলাম প্রমুখ।

সভায় জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর জানান, আগামীকাল বৃহস্পতিবারের মধ্যে ইজতেমা ময়দান শতভাগ প্রস্তুত হয়ে যাবে। মুসল্লিদের সেবাদানের জন্য সরকারের সকল সংস্থা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top