জন্ম দেওয়ায় বাবা-মার বিরুদ্ধে ছেলের মামলা!

Presentation1-6.jpg
ভারতের মুম্বাইয়ের ব্যবসায়ী রাফায়েল স্যামুয়েল। ছবি বিবিসির সৌজন্যে

যাপিত জীবনের হাজারো যন্ত্রণা সইতে সইতে বিরক্ত তিনি। তাই বাবা-মায়ের ওপর তাঁর খুব ক্ষোভ। জিজ্ঞাসা তাঁর একটাই, ‘জন্ম দেওয়ার আগে কেন মত নিলে না?’ এখন এই বিষয়টিকেই আদালতে নিয়ে যেতে চাইছেন ভারতের মুম্বাইয়ের ব্যবসায়ী রাফায়েল স্যামুয়েল। জন্ম দেওয়ার অভিযোগ তুলে তিনি বাবা-মায়ের বিরুদ্ধে মামলা করার পরিকল্পনা করছেন!

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, স্যামুয়েলের বয়স ২৭ বছর। তাঁর সম্মতি না নিয়ে কেন তাঁকে বাবা-মা জন্ম দিলেন, এই প্রশ্নে আদালতের দ্বারস্থ হতে চান স্যামুয়েল। যদিও তিনি মেনে নিয়েছেন যে জন্মের আগে সন্তানের সম্মতি চাওয়া অসম্ভব। কিন্তু স্যামুয়েলের বক্তব্য হচ্ছে, জন্ম নেওয়ার সিদ্ধান্তটি তো তিনি নিতে পারেননি!

স্যামুয়েল বলছেন, বর্তমানে পৃথিবীর যে হাল, তাতে শিশুদের জন্ম দেওয়া শাস্তি দেওয়ার শামিল। কারণ এখানে বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নানা ধরনের ‘যন্ত্রণা’ সহ্য করতে হয়। এই তরুণ ব্যবসায়ীর দাবি, ‘যেহেতু আমাদের জন্মানোর সময় মতামত জানা সম্ভব হচ্ছে না, সেহেতু বাকি জীবন কাটাতে আমাদের অর্থ পরিশোধ করতে হবে।’ভাবুন একবার, আপনার সন্তান যদি এমন দাবি করে বসে তবে কী হবে? খুব স্বাভাবিকভাবেই একটা হুলুস্থুল কাণ্ড হবে। কিন্তু স্যামুয়েল জানাচ্ছেন, তাঁর আইনজীবী বাবা-মা এমন কিছুই করেননি। বরং সন্তানের এমন কথা বেশ স্বাভাবিকভাবেই নিয়েছেন তাঁরা।

স্যামুয়েলের মা কবিতা স্যামুয়েল এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আমরা স্বামী-স্ত্রী আইনজীবী জেনেও ছেলে রাফায়েল আমাদের আদালতে নেওয়ার যে সাহস দেখিয়েছে, তার প্রশংসা করি আমি। জন্মের আগে সম্মতি নেওয়ার বিষয়টি যদি রাফায়েল আদালতে যুক্তিসহকারে প্রমাণ করতে পারে, তবে আমি আমার দোষ মেনে নেব।’

রাফায়েল স্যামুয়েল মনে করেন, মানবজীবন দুঃখে পরিপূর্ণ। তাই মানুষের বংশবিস্তার বন্ধ করে দেওয়া উচিত। তিনি বলছেন, পৃথিবী থেকে মানুষ বিলুপ্ত হয়ে গেলে এই গ্রহ আরও ভালো একটি স্থান হয়ে উঠবে। কারণ এখন বিশ্বের নানা স্থানে অনেক মানুষ দুঃখভোগ করছে। মানুষের অস্তিত্বের আর কোনো অর্থ নেই।

নিজের এমন ভাবনা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকেও প্রচার চালিয়েছেন রাফায়েল। সেখানে দেওয়া তাঁর পোস্টগুলোও বেশ আলোচিত হয়েছে। তবে নিন্দুকেরা বলছেন, স্রেফ প্রচারের আলোয় আসতেই এমন কাজ করছেন রাফায়েল।

অবশ্য এ ধরনের মামলা আদালতে ওঠার সঙ্গে সঙ্গেই খারিজ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। তা মেনেই রাফায়েল বলছেন, এ বিষয়ে নিজের দৃঢ় অবস্থান তৈরির জন্য হলেও মামলা করতে চান তিনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top