কক্সবাজার ছাত্রলীগ নেতাকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত, আশঙ্কাজনক অবস্থায় চমেকে প্রেরণ

received_382656105614482.jpeg

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কক্সবাজার শহরে চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে শহর ছাত্রলীগ নেতা হাসান তারেক। মোবাইল ছিনতাইয়ের উদ্দেশ্যে জিয়া উদ্দিন নামে এক দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে হাসান তারেককে। গত মঙ্গলবার রাত দেড়টার দিকে কক্সবাজার শহরের পানবাজার সড়কের ভোলা বাবুর পেট্রোল পাম্পের কাছে মতির দোকানের সামনে এই ঘটনা ঘটে।

এই ঘটনায় হাসান তারেককে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আশঙ্কাজনক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

এবিষয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি ফরিদ উদ্দীন খন্দকার বলেন, হাসান তারেক নামে এক ছাত্রলীগ নেতাকে ছুরিকাঘাত করেছে দুর্বৃত্তরা। পুলিশ এই ঘটনায় অভিযুক্ত জিয়া উদ্দিন ও মোহাম্মদ মুরাদসহ বেশ কয়েকজন আটক করতে তাদের বাড়িসহ বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালানো হচ্ছে। তবে তারা পলাতক রয়েছে। তারপর তাদের ধরতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। জিয়া উদ্দিনের নামে থানায় মামলা রয়েছে বলেও তিনি জানান।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র মতে, কক্সবাজার জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি নুরুল আজিম কনক সড়ক দূর্ঘটনায় আহত হওয়ার খবরে আল ফুয়াদ হাসপাতালে গত মঙ্গলবার রাতে দেখতে যান ছাত্রলীগ নেতা হাসান তারেক। সেখান থেকে ফিরে ভোলা বাবুর পেট্রোল পাম্পের কাছে মতির দোকানে চা খেতে আসলে আগে থেকে উৎপতে থাকা সন্ত্রাসী ও ইয়াবাকারবারী জিয়াউদ্দিন ও তার স্বশস্ত্র সহযোগীরা তারেকের কাছ থেকে মোবাইল ছিনতাইয়ের চেষ্টা করে। এতে তারেক বাধা প্রদান করতে চাইলে জিয়া উদ্দিন প্রথমে ছুরিকাঘাত করে। এক পর্যায়ে জিয়া উদ্দিন (২৫) ও তার সহযোগি মোহাম্মদ মুরাদসহ (২০) বেশ কয়েকজন ছিনতাইকারী মিলে তারেককে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। ওই হামলার ঘটনা মতির দোকানের সিসিটিভি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ রয়েছে।

হামলাকারী জিয়া উদ্দীন মধ্যম বাহারছড়া এলাকার মোস্তাক আহমদের ছেলে বলে জানা গেছে। সে চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী ও ছিনতাইকারী। শহরের গাড়ির মাঠে তার নেতৃত্বে একটি সিন্ডিকেট ইয়াবা বিক্রি করে। তার বিরুদ্ধে ইয়াবার মামলাও রয়েছে।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, ছাত্রলীগ নেতা হাসান তারেককে ছুরি দিয়ে আঘাত করার পরও সন্ত্রাসী জিয়াউদ্দিন ও তার স্বশস্ত্র সন্ত্রাসীরা ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে দ্রুত পালিয়ে যায়।

এদিকে ঘটনার সুষ্ঠ বিচার ও তদন্ত দাবি জানিয়ে শহর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হাসান মেহেদী রহমানের নেতৃত্বে গতকাল বুধবার প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত ইয়াবা ব্যবসায়ী ও চিহ্নিত ছিনতাইকারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত তদন্ত করে আইনের আওতায় বিচার করার দাবী জানান তিনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top