আজ খুবই মন খারাপ হয়ে গেল

Screenshot_2018-11-10-23-05-27-560_com.facebook.katana.jpg
দিসিএম ফেসবুক কর্নার

কক্সবাজারে আজ চিরকুটে লিখে একিই ঘরে  এক সাথে  দুই বোন আত্মহত্যা করেছে।

রামু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল মনসুর ঘটনাস্হলে কর্তব্য পালন করতে গিয়ে সমাজিক যোগাযোক মাধ্যমে তার অনুভুতির কথা তুলে ধরেন যা আমরা দিসিএমের পাঠকের জন্য হুবহু তুলে ধরলাম

প্রসঙ্গ —
সহোদর বোন মর্জিনা ও তসলিমা এর আত্মহত্যা।

আজ খুবই মন খারাপ হয়ে গেল।
যখন শুনি দুই সহোদর বোন আত্মহত্যা করেছে।
বাবা গরিব দিন মজুর মা ও অন্যের বাসায় কাজ করে। অনেক কষ্ট করে 17 বছরের মর্জিনা এবং 13 বছরের তসলিমাকে এতোটুকু মানুষ করেছে, পড়ালেখা করিয়েছে। অথচ মায়ের বকুনি খেয়ে অভিমান করে আজ সকাল 10 টা থেকে 12 টার মধ্যেকার সময়ে তারা গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। রামু থানা এলাকার সকল ছাত্র-ছাত্রী সহ সকলকে অনুরোধ- আত্মহত্যা মহাপাপ। এ কথা সবাই মনে রাখবেন এবং শিশুরা বাচ্চারা স্কুল-কলেজের ছাত্রছাত্রীদের প্রতি অনুরোধ এই যে , বাবা-মা আপনাদের সবচেয়ে বেশি আপন জন। কখনোই বাবা- মা ছেলে মেয়ের অমঙ্গল চান না। এটা মনে রাখতে হবে এই বাবা-মা সব সময় সন্তানদের মঙ্গল চান এবং মঙ্গলের জন্যই বকাবকি করেন। সুতরাং বাবা-মার শাসন কে সব সময় আশীর্বাদ মনে করতে হবে এবং এটাই জীবন চলার পাথেয়। আপনারা যারা আজকে স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রী -আপনারা যেদিন মা_বাবা হবেন সেদিন আপনারা বুঝতে পারবেন বাবা-মায়ের কি কষ্ট একটা ছেলে মেয়েকে বড় করতে। বাবা মায়ের কি পরিশ্রম কি সাধনা।সুতরাং আপনারা কেউ আর এই ভুল করবেন না। এই মিনতি আমার। আর কোন বাবা মায়ের বুক যেন এরকম দুঃখজনকভাবে খালি না হয়।
সবার কাছে এই অনুরোধ রইল।

ছবি-
ঘটনাস্থল মর্জিনা ও তসলিমার রশিদ নগর ইউনিয়নের সিকদারপাড়ার বসতঘর।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top