বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের দায়িত্ব বুঝে পেল বাংলাদেশ

232008cbadda876a1ec621993293c78e-5be587476e3ed.jpg
আনুষ্ঠানিকভাবে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের মালিকানা ও দায়িত্ব বুঝে পেল বাংলাদেশ। বাংলামোটরে বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের কার্যালয়ে এই অনুষ্ঠান হয়। ঢাকা, ৯ নভেম্বর। ছবি: আহমেদ দীপ্ত

উৎক্ষেপণের ছয় মাসের মাথায় বাংলাদেশের প্রথম উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ (বিএস-১) এর পুরোপুরি দায়িত্ব বুঝে পেয়েছে বাংলাদেশ। এখন থেকে এই স্যাটেলাইটের রক্ষণাবেক্ষণ, পরিচালনাসহ সব দায়িত্ব বাংলাদেশের।

আজ শুক্রবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে রাজধানীর বাংলামোটরের বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিএসসিএল) কার্যালয়ে ‘বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের হস্তান্তর’ শীর্ষক এক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে এই দায়িত্ব বুঝিয়ে দেওয়া হয়। বাংলাদেশের পক্ষে দায়িত্ব বুঝে নেয় বিসিএসসিএল।

গত ১২ মে বাংলাদেশ সময় দিবাগত রাত ২টা ১৪ মিনিটে যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে দেশের প্রথম উপগ্রহ বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর সফল উৎক্ষেপণ হয়। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান থ্যালেস অ্যালেনিয়া স্পেস। ফ্রান্সের এই প্রতিষ্ঠানটির কাছ থেকে বাংলাদেশ আজ স্যাটেলাইটটির সম্পূর্ণ মালিকানা বুঝে নেয় ৷

অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) কাছে স্যাটেলাইটটির মালিকানা বুঝিয়ে দেয় থ্যালেস অ্যালেনিয়া। এরপর বিটিআরসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এই দায়িত্ব বিসিএসসিএলেরর কাছে বুঝিয়ে দেন। পরে বিসিএসসিএলের চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বলেন, এটা একটা ঐতিহাসিক মুহূর্ত বাংলাদেশের জন্য। এখন থেকে আনুষ্ঠানিক মালিকানা পেল বাংলাদেশ। তিনি বলেন, ‘এর মধ্য দিয়ে ফ্রান্স ও বাংলাদেশের মধ্যে সেতু তৈরি হলো। তারা আমাদের স্থায়ী বন্ধু হলো।’ স্যাটেলাইটের সবকিছু ঠিক থাকলে তিন বছরের মধ্যে লাভ করা শুরু হবে বলে জানান শাহজাহান মাহমুদ।

ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য প্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘এই স্যাটেলাইট আমাদের ঐতিহাসিক স্মৃতিতে পরিণত হয়েছে। এটা শুধু দেশের জন্য গর্ব নয়, নির্মাতা প্রতিষ্ঠানসহ দুই দেশের গর্ব। চ্যালেঞ্জ ছিল উড়বে কি না। কিন্তু তা উড়েছে। এই স্যাটেলাইট দিয়ে কতটা লাভ হবে, কী খরচ হলো, কতটা উপকার পাব, এর চেয়ে আমাদের কাছে বড় অর্জন—আমরা একটা স্যাটেলাইটের মালিক।’
বাংলাদেশে নিযুক্ত ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূত ম্যারি আনিক বুখডা বলেন, ‘এই প্রকল্পটা আমাদের জন্য সত্যিই খুব খুশির এবং সন্তোষজনক।’

প্রায় তিন হাজার কোটি টাকা খরচ করে তৈরি করা বঙ্গবন্ধু-১ দিয়ে স্যাটেলাইট প্রযুক্তির অভিজাত দেশের ক্লাবে বাংলাদেশ প্রবেশ করে। বিশ্বের ৫৭তম দেশ হিসেবে নিজস্ব স্যাটেলাইটের মালিক হয় বাংলাদেশ।

অনুষ্ঠানে বিটিআরসির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মো. জহুরুল হক, তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি (আইসিটি) সচিব শ্যামসুন্দর শিকদার প্রমুখ বক্তব্য দেন। এই উপলক্ষে একটা কেক কাটা হয়।

গাজীপুরের তেলিপাড়া এলাকায় পাঁচ একর জমির ওপর বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১-এর গ্রাউন্ড স্টেশন তৈরি হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top