টেকনাফে ট্রলার ডুবির নিখোঁজ জেলের লাশ উদ্ধার

FB_IMG_1532801232156.jpg

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ 

টেকনাফে বঙ্গোপসাগরে মাছ শিকারে গিয়ে ফিশিং ট্রলার ডুবিতে নিখোঁজ জেলে আলী হোসেনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। লাশ উদ্ধারের পর সকাল ১১টার দিকে নামাজে জানাজা শেষে সাবরাং মুন্ডারডেইল কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে। হতভাগ্য জেলে আলী হোছন (৩৭) টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের মুন্ডারডেইল গ্রামের মৃত ফজল আহমদের পুত্র। তাঁর সংসারে স্ত্রী, অপ্রাপ্ত বয়স্ক ২ মেয়ে এবং ১ ছেলে সন্তান রয়েছে।
জেলে আলী হোছনের পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, শনিবার ২৮ জুলাই সকাল ৬টার দিকে টেকনাফ উপজেলার উপকুলীয় ইউনিয়ন বাহারছড়ার দক্ষিণ শীলখালী সৈকতে একটি লাশ ভেসে আসার খবর পেয়ে নিখোঁজ জেলে আলী হোছনের আতœীয়-স্বজনরা ঘটনাস্থলে গিয়ে সনাক্ত করে লাশ নিয়ে আসে।
উল্লেখ্য, ২৭ জুলাই শুক্রবার সকালে টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের মুন্ডারডেইল ঘাটের পশ্চিমে বঙ্গোপসাগরে ফিশিং ট্রলার ডুবির এ ঘটনা ঘটে। ওই ফিশিং ট্রলারে ৫ জন মাঝি-মাল্লা ছিল। টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের মন্ডলপাড়া গ্রামের মাস্টার নুরুল ইসলামের পুত্র মোঃ জামালের মালিকানাধীন ২৩-২৫ অশ্বশক্তি সম্পন্ন ফিশিং ট্রলার নিয়ে ৫ জন মাঝি-মাল্লাসহ প্রতিদিনের মতো শুক্রবার ২৭ জুলাই সকালে সাবরাং ইউনিয়নের মুন্ডারডেইল ঘাট দিয়ে বঙ্গোপসাগরে মাছ শিকারে যায়। এসময় প্রচন্ড ঝড়ো হাওয়ার কবলে পড়ে ফিশিং ট্রলারটি ডুবে যায়। মুন্ডারডেইল গ্রামের আবদুর রহমানের পুত্র ফিশিং ট্রলারের মাঝি বশির আহমদ (৩৩), একই গ্রামের ছৈয়দুল করিমের পুত্র জেলে আবদুস সালাম (৩০), মোঃ সুলাইমানের পুত্র মোঃ সাদেক (৩৫) এবং মিয়ানমার নাগরিক রোহিঙ্গা মোঃ ছলিমসহ মোট ৪ জন নিকটবর্তী জেলেদের সহায়তায় তীরে ফিরতে সক্ষম হলেও মুন্ডারডেইল গ্রামের মৃত ফজল আহমদের পুত্র জেলে আলী হোছন (৩৭) নিখোঁজ ছিল। ##

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top