তানভীরের জানাযায় শোকার্ত মানুষের ঢল

Tanvir.jpg

ছৈয়দ আলম, কক্সবাজার : 

সন্ত্রাসীদের হাতে নির্মমভাবে নিহত কক্সবাজারের মেধাবী ছাত্র এএইচএম তানভীর আহমেদ (২৬) এর জানাযা ৩০ জুন শনিবার দুপুর ২টায় কক্সবাজার হাশেমিয়া আলিয়া মাদ্রাসার মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত জানাযায় শিক্ষক, জনপ্রতিনিধি, সমাজ সেবক, রাজনীতিবিদসহ সর্বশ্রেণীর শোকার্ত মানুষের ঢল নামে।
জানাযা পূর্বে তার রুহের মাগফেরাত কামনা করে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন-কক্সবাজার পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আশরাফুল হুদা ছিদ্দিকী জামশেদ, মরহুমের বড় ভাই মোহাম্মদ মহসিন, আহসান উল্লাহ বাচ্চু, কক্সবাজার জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মো: রাসেদুল হক রাসেল, এডভোকেট আবু ছিদ্দিক ওসমানী, নিহত তানভীরের বড় মামা সিনিয়র আইনজীবি এডভোকেট মোস্তাক আহমদ, আসন্ন কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী রুহুল আমিন সিকদার, রফিকুল ইসলাম, সরওয়ার কামাল, মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান, কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জিএম রহিমুল্লাহ ও কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সাবেক সাংসদ আলহাজ¦ লুৎফুর রহমান কাজল।
বক্তব্যকালে-মেয়রপ্রার্থী রুহুল আমিন সিকদার বলেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে তর্কবিতর্কে যদি মেধাবী ছাত্রের প্রাণচলে যায় তাহলে এ নির্বাচন করার দরকার নেই। রুমালিয়ারছড়া একটি চিহ্নিত সন্ত্রাসী এলাকা। এই এলাকায় অভিলম্বে পুলিশ ফাঁড়ী স্থাপন করা হউক এবং নির্বাচনী সহিংসতা বন্ধ করতে হবে অন্যথায় আমি নির্বাচন থেকে সড়ে দাঁড়াবো।
মেয়রপ্রার্থী রফিকুল ইসলাম কাউন্সিলর বলেন-তানভীর একজন জাতীয়তাবাদি শক্তির একনিষ্ট কর্মী ছিল। সে অত্যান্ত মেধা-মনন দিয়ে সমাজ ও ছাত্রদের এগিয়ে চলার পাথেয় হিসেবে কাজ করছিল। কি দোষে কি কারনে কাদের ইশারায় সন্ত্রাসীদের দিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করেছে আমি তার জবাব চাই। অবশ্যই খুনীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতেই হবে।
অপর মেয়রপ্রার্থী সরওয়ার কামাল বলেন-আমরা কক্সবাজারবাসী আজ গভীর শোকাহত। একজন মেধাবী ছাত্রকে খুনের মাধ্যমে কক্সবাজারকে অশান্ত করে নির্বাচনকে অস্থিতিশীল করার জন্য একটি শ্রেনী উঠেপড়ে লেগেছে। মানুষের মাঝে ভীতি-ভয় সৃষ্টি করা হচ্ছে। আমরা এই পরিবেশ চাইনা। তানভীর হত্যার সুষ্ঠু বিচার চাই। আগামিতে মানুষের সার্বিক নিরাপত্তা নিশ্চিত ও নির্বাচন অবাধ এবং সন্ত্রাসমুক্ত পরিবেশে অনুষ্ঠানে সরকারের সু-দৃষ্টি কামনা করছি। কক্সবাজার পর্যটনবান্ধন ও রাজনৈতিক বন্ধনসমৃদ্ধ এলাকা। সামান্য ক্ষমতার জন্য কোন মায়ের বুক খালি হতে দেয়া যায়না। একজনকে চেয়ার পাইয়ে দিতে হাজারো স্বজনের বুকফাটা আর্তনাদ শুনতে চাইনা। আমরা নিরীহ জনগণ চাই শান্তি।
সর্বশেষ বক্তব্যে মেয়রপ্রার্থী মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান বলেন-আল্লাহর কসম তানভীর হত্যার সুষ্ঠু বিচার করব করবই। হত্যাকা-ে জড়িতদের অবশ্যই ফাঁসি যাতে হয় সেই লক্ষে কাজ করব। এবং সন্ত্রাসীদের জনপদ রুমালিয়ারছড়ায় পুলিশ ফাঁড়ী স্থাপনের আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাব। কোনভাবেই আমি আগামি পৌরসভা নির্বাচনে গ-গোল করতে চাইনা সেই লক্ষে নেতাকর্মিদের বলে দিয়েছি। আমি চাই একটি সুষ্টু নির্বাচন। তিনি নিহত তানভীরের আত্বার মাগফেরাত কামনা করে তার পরিবার পরিজনের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। নামাজে যানাজা শেষে রুমালিয়ারছড়া কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হয়।
উল্লেখ্য-মেধাবীছাত্র ও ছাত্রদল নেতা এইচএম তানভীর আহমেদকে ২৯ জুন জুমার নামাজের পর কাউন্সিলর প্রার্থী আশরাফুল হুদা ছিদ্দিকী জামশেদ এর নির্বাচনী প্রচারণাকে কেন্দ্র করে একদল চিহ্নিত দুর্বৃত্তরা ছুরিকাঘাত করে নিমর্মভাবে হত্যা করে। নিহত তানভীর দক্ষিণ রুমালিয়ারছড়া আশুঘোনা এলাকার মোহাম্মদ সোলাইমানের ছেলে ও কক্সবাজার সরকারি কলেজের গণিত বিভাগের শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি কক্সবাজার হাশেমিয়া কামিল (অনার্স-মাস্টার্স) মাদ্রাসার দাখিল ৯ ব্যাচ এবং আলিম ১০-১১ ব্যাচের মেধাবী ছাত্র।
বর্তমানে কক্সবাজার আইডিয়াল মাদ্রাসার বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক ও প্রতিভা কোচিং সেন্টারের পরিচালক। আগামী ১০ জুলাই নৌবাহিনীর অফিসার পদে অনুষ্ঠিতব্য পরীক্ষায় অংশ নেয়ার কথা ছিল তানভীরের।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top