সার্ক উৎসবে তৌকীরের বাজিমাত

20031631_153185185242947_6342875697854963899_n-1.jpg

অষ্টম সার্ক চলচ্চিত্র উৎসবে যোগ দেবেন কি না এ নিয়ে দোটানায় ছিলেন অভিনয়শিল্পী ও নির্মাতা তৌকীর আহমেদ। আয়োজকদের অনুরোধে শেষতক রাজি হন। ২৩ মে কলম্বোর উদ্দেশে উড়াল দিয়ে উৎসবে অংশ নিলেন। উৎসবের শেষ দিন জানলেন খুশির খবর। অষ্টম সার্ক চলচ্চিত্র উৎসবে তৌকীর আহমেদ পরিচালিত ছবি ‘হালদা’ চারটি বিভাগে পুরস্কার জিতে নিয়েছে।

সার্কভুক্ত দেশ থেকে অষ্টম সার্ক চলচ্চিত্র উৎসবে এবার ২৬টি চলচ্চিত্র জায়গা পেয়েছে। ২২ মে থেকে ২৭ মে পর্যন্ত শ্রীলঙ্কার কলম্বোতে অনুষ্ঠিত উৎসবে তৌকীরের ‘হালদা’ ছবিটি ছাড়াও আমন্ত্রিত হয়েছে আকরাম খানের ‘খাঁচা’ ও মোরশেদুল ইসলামের ‘আঁখি ও তাঁর বন্ধুরা’। উৎসবের প্রতিযোগিতা বিভাগের সমাপনী চলচ্চিত্র হিসেবে ২৬ মে স্থানীয় সময় ৩টা ৩০ মিনিটে প্রদর্শিত হয় তৌকীর আহমেদের ‘হালদা’। বিচারকদের রায়ে ছবিটি সেরা চলচ্চিত্র, সেরা চিত্রগ্রাহক, সেরা সম্পাদক ও সেরা আবহ সংগীতের সম্মান অর্জন করেছে।

শ্রীলঙ্কা থেকে রোববার দিবাগত রাতে তৌকীর আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমাদের ছবি যখন দেশের বাইরে উৎসবে যায় তখন সেখানে বাংলাদেশের নাম উচ্চারিত হয়। পুরস্কার পেলে তো বারবার বাংলাদেশের নাম শুনতে পারি। দেশের বাইরে মর্যাদাপূর্ণ আসরে কোনো অর্জনে দেশের নাম উচ্চারণের বিষয়টি অনেক গর্বের, অনেক আনন্দের।’

পুরস্কার প্রাপ্তির খবরটি তৌকীর তাঁর ফেসবুকে শেয়ার করেছেন। ফেসবুকে পোস্ট করা ছবিতে দেখা গেছে, তৌকীর আহমেদ চারটি ট্রফি বুকে আগলে রেখেছেন। জানতে চাইলে এই অভিনয়শিল্পী ও পরিচালক বললেন, ‘পুরস্কার তো সব সময় অনেক ভারী হয়। কিন্তু এই ট্রফিগুলো আক্ষরিক অর্থে অনেক ওজন, আয়োজকেরা বলেছেন, একেকটার ওজন নাকি ছয় কেজি করে। সেই হিসেবে ২৪ কেজি দুই হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে আছি কিন্তু (হাসি)।’

উৎসবের গত আসরে তৌকীর আহমেদ পরিচালিত ‘অজ্ঞাতনামা’ চলচ্চিত্রটি সেরা চিত্রনাট্যের পুরস্কার পেয়েছিল। এই উৎসবে যাওয়ার আগে তৌকীরকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল, এবারও তো সেরকম কিছু ঘটতে পারে…উত্তরে তৌকীর স্মিত হেসে প্রথম আলোকে বলেছিলেন, ‘ঘটবে কি না, জানি না। তবে গত বছরের অভিজ্ঞতাটা খুব ভালো। আমাদের এই অঞ্চলে যে দারুণ দারুণ ছবি নির্মিত হচ্ছে, সেটা ওই উৎসবে গিয়ে বুঝেছি। নেপাল, শ্রীলঙ্কাসহ সার্কভুক্ত দেশগুলোর অসাধারণ কিছু চলচ্চিত্র উপভোগ করেছিলাম। উৎসবে কিন্তু এই অঞ্চলের সেরা নির্মাতাদের সেরা ছবিগুলোই যায়। তাই পুরস্কার পাওয়াটা সহজ নয়।’

শেষ পর্যন্ত দেখা গেল তৌকীরের ছবি এবার আর একটি নয়, চারটি পুরস্কার জিতে নিল। প্রসঙ্গটিও মনে করিয়ে দিতেই তৌকীর বললেন, ‘অনেক ভালো ভালো ছবি উৎসবে প্রদর্শনের জন্য নির্বাচিত হয়েছে। শ্রীলঙ্কারও অনেকগুলো ভালো ছবি এই উৎসবে ছিল। তাই খুব একটা আশা করিনি আরকি। আমাদের অন্য যে ছবিগুলো উৎসবে প্রদর্শিত হয়েছে সেগুলো উৎসবে আসা অতিথি ও বিচারকদের কাছে প্রশংসিত হয়েছে। সবাই হয়তো পুরস্কার পায়নি, বিচারকেরা আমাদের বলেছে বাংলাদেশের ছবি দেখে তাঁরা খুশি।’

শ্রীলঙ্কা থেকে সোমবার ঢাকায় ফেরার কথা তৌকীর আহমেদের। এদিকে নতুন ছবি ‘ফাগুন হাওয়ায়’ এর কাজ ইতিমধ্যেই শেষ করেছেন তিনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top