বিদায় নেওয়ার সময় বাংলায় বললেন ‘আবার আসব’- বলিউড তারকা প্রিয়াঙ্কা চোপড়া

Priyanka-2.jpg

জসিম মাহমুদ :
মিয়ানমার সেনাবাহিনী ও বৌদ্ধ মিলিশিয়াদের হত্যাযজ্ঞের মুখে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের অবস্থা পরিদর্শনে এসেছেন জাতিসংঘের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান ইউনিসেফ-এর শুভেচ্ছা দূত জনপ্রিয় বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া।
সোমবার কক্সবাজারের শামলাপুরে রোহিঙ্গা শিশুদের মাঝে দীর্ঘ সময় কাটান জনপ্রিয় এই বলিউড অভিনেত্রী।রিফাত হোসেনকে বাংলায় জিজ্ঞেস করলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। তোমাদের এখানে আমাকে ঘোরাবে? মাথা নেড়ে সম্মতি জানায় এই রোহিঙ্গা কিশোর। এরপর তার হাত ধরে রোহিঙ্গা শিবিরে হাঁটলেন এই বলিউড তারকা।
গতকাল সোমবার বিকেল সাড়ে ৩টায় টেকনাফের বাহারছড়ার শামলাপুরে রোহিঙ্গা শিশুদের মাঝে দীর্ঘ সময় কাটান জনপ্রিয় এই বলিউড অভিনেত্রী। ইউনিসেফ’র পরিচালিত একটি হাসপাতালে ঘুরে দেখেন এবং রোহিঙ্গাদের খবর নেন। ইউনিসেফ পরিচালিত (আইসিডিডিআর, বি) হাসপাতালে। এ সময় হাসপাতালের ভেতরে বাইরের কাউকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি।
ওই হাসপাতালের জরুরী সেবা কক্ষে চিকিৎসক রিসাত ইবনে হক বলেন, প্রিয়াঙ্কা সেখানে রোগীদের সঙ্গে কথা বলেন। পানিবাহিত রোগ ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত শিশুদের ব্যাপারে খোঁজখবর নেন। জানতে চান এবং খাবার পানি ভালভাবে পায় কি না জানতে চাইলে তাঁকে জানানো হয়, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ করা হচ্ছে।
পরে তিনি হাসপাতাল থেকে পায়ে হেটে মনখালি ব্রিজের পাশে অস্থায়ী রোহিঙ্গা শিবিরে যান । এ সময় তাঁর পরনে ছিল কালো জিনসের প্যান্ট, টি-শার্ট আর মাথায় স্কার্ফ। তাঁর সঙ্গে ছিলেন ইউনিসেফ ও স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।
প্রিয়াঙ্কা চোপড়া আসছেন, খবরটি আগে থেকেই রটে যায়। তাই অতিথিদের গাড়ি এসে থামতেই ভিড় করেন রোহিঙ্গা শিবিরে থাকা মানুষজন। সঙ্গে আরও আসেন স্থানীয় অধিবাসীরা। যে তারকাকে সবাই দেখেছেন হিন্দি চলচ্চিত্রে, তাঁকে কাছ থেকে এক নজর দেখার জন্য সবার চেষ্টা। মুহূর্তেই ভিড় বেড়ে যায়। প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য আগে থেকেই পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয় সেখানে। পুলিশ সবাইকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু তাতে বাধা দেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। পুলিশকে অনুরোধ করেন, প্লিজ, কাউকে এভাবে সরাবেন না। ধাক্কা দেবেন না।’
প্রিয়াঙ্কা চোপড়া এ সময় বাংলায় ছেলেটিকে তিনি জিজ্ঞেস করেন, তোমার নাম কী? ছেলেটি বলল, মো. রফিক। ‘তুমি স্কুলে যাও?’ ছেলেটি মাথা নেড়ে বলল, যাই।
বিকেল ৪টায় প্রিয়াঙ্কা গাড়িতে গিয়ে ওঠেন। যাওয়ার আগে হাত নাড়িয়ে সবার কাছ থেকে বিদায় নেন। বাংলায় বললেন, আবার আসব।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top