৮৫ কিলোমিটারের যানজট কমে ৬০

fd1f8bb3018344c00f61dd202c79dc98-5af7c50f2ea2d.jpg

দিসিএম

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনীর ফতেহপুর রেলক্রসিং থেকে পার্শ্ববর্তী বিসিক শিল্পাঞ্চল দিয়ে বিকল্প সড়ক চালুর কারণে যানজট ধীরে ধীরে কমে আসছে। গতকাল শনিবার রাত ১০টা নাগাদ চট্টগ্রামমুখী গাড়িগুলো ফেনীর বিসিক শিল্পাঞ্চল হয়ে মহিপাল উড়ালসড়ক দিয়ে পার করে দেওয়া শুরু হয়। এ কারণে ৮৫ কিলোমিটারের জট ৬০ কিলোমিটারে নেমে এসেছে। বৃষ্টি না হলে রাতের মধ্যে পরিস্থিতির আরও উন্নতি হবে বলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

ফেনীতে বিকল্প সড়ক চালুর কারণে ধীরে ধীরে গাড়ি গন্তব্যের দিকে যাচ্ছে। আজ রোববার দুপুর একটা নাগাদ ফেনীর ১৫ কিলোমিটার উত্তরে কুমিল্লার পদুয়া এবং ৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণে চট্টগ্রামের বড় দারোগাহাট পর্যন্ত জট ছিল। তবে এখন গাড়ির চাকা ঘুরছে। রাতের মধ্যে যানজট ৮০ শতাংশ কমে যাবে বলে ট্রাফিক পুলিশের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্র জানায়, শনিবার রাতে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামমুখী গাড়িগুলোকে ফেনীর ফতেহপুর রেলক্রসিং থেকে বিসিক হয়ে মহিপাল উড়ালসড়ক দিয়ে পার করে দেওয়ার কাজ শুরু হয়। গতকাল রোববার সকালে বিসিক শিল্পাঞ্চলের বিকল্প সড়কটিতে একটি গাড়ি আটকে গেলে আবার প্রায় এক ঘণ্টা চট্টগ্রামমুখী গাড়ি চলাচল বন্ধ ছিল। ওই গাড়ি সরানোর পর চট্টগ্রামের দিকে আবার গাড়ি যাচ্ছে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট নিরসনে ফেনীর ফতেহপুর রেলক্রসিংয়ে উড়াল সেতুর নির্মাণকাজ চলছে। নির্মাণকাজের কারণে মহাসড়কের ফেনীর রেলক্রসিং এলাকায় ঢাকামুখী গাড়ি চললে চট্টগ্রামমুখী বন্ধ রাখা হয়। একইভাবে চট্টগ্রামমুখী চললে ঢাকামুখীগুলো বন্ধ রাখা হয়। আর চার লেনের মহাসড়কটি উড়াল সেতুর নির্মাণাধীন এলাকায় প্রায় আধা কিলোমিটার পথ এক লেন করা হয়েছে। ফলে যানজটে স্থবির হয়ে গেছে মহাসড়কটি।

ফেনী জেলা পুলিশ পরিদর্শক (ট্রাফিক) মীর গোলাম ফারুক প্রথম আলোকে বলেন, জরুরি রপ্তানি পণ্যবাহী গাড়ি চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছাতে কুমিল্লার লাকসাম ও নোয়াখালীর চৌমুহনী হয়ে ফেনীর মহিপাল দিয়ে চট্টগ্রামে পাঠানো হচ্ছে। একই সঙ্গে শনিবার রাত ১০টায় ফেনীর রেলক্রসিং থেকে বিসিক শিল্পাঞ্চল হয়ে মহিপাল উড়ালসড়ক দিয়ে চট্টগ্রামমুখী আরও অনেক গাড়ি পার করে দেওয়া হচ্ছে। দুটি বিকল্প সড়ক ব্যবহারের কারণে চট্টগ্রামমুখী গাড়ির জট ফেনীর উত্তরে ১৫ কিলোমিটারে নেমে এসেছে, যা গতকাল শনিবারও ৩০-৩৫ কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল।

গোলাম ফারুক আরও বলেন, ঢাকামুখী গাড়ি পার করে দেওয়ার বিকল্প সড়ক না থাকায় ফেনী থেকে এই জট দক্ষিণে ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল। ফেনী রেলক্রসিংয়ের কাছে এক লেনের সড়কে কেবল ঢাকামুখী গাড়ি শনিবার রাত থেকে পার দেওয়া শুরু হয়। এ কারণে জট কমে সীতাকুণ্ডের দারোগাহাট পর্যন্ত এসেছে, যেটা আজ ভোরে বাড়বকুণ্ড পর্যন্ত বিস্তৃত ছিল। বৃষ্টি না হলে রাতের মধ্যেই জট ৮০ শতাংশ কমে যাবে।

নির্মাণাধীন উড়াল সেতু:

আগামী মঙ্গলবারের মধ্যে ফেনীর ফতেহপুরে রেলক্রসিংয়ের ওপর নির্মাণাধীন একটি উড়াল সেতু আগামী মঙ্গলবার চালু করার কথা রয়েছে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং কোরের সদস্যরা প্রকল্প এলাকায় কাজ তদারক করে যাচ্ছে।

উড়াল সেতু প্রকল্পের দায়িত্বশীল একজন সেনা কর্মকর্তা প্রথম আলোকে বলেন, গত বছরের মার্চে সেনাবাহিনী উড়ালসড়ক নির্মাণের তদারকি দায়িত্ব নেয়। কিন্তু ১৪ মাসের মধ্যে সাড়ে ১৩ মাস কোনো সমস্যা হয়নি। সম্প্রতি যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে, বিরূপ আবহাওয়া এর অন্যতম কারণ। এই সেনা কর্মকর্তা আরও বলেন, মঙ্গলবার এক পাশের উড়াল সেতু চালুর পরিকল্পনা রয়েছে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট নিরসনে ফেনী রেলক্রসিংয়ে ২০১২ সালে উড়াল সেতুর নির্মাণকাজ শুরু হয়। শিপু বিপিএল নামে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কার্যাদেশ পায়। প্রতিষ্ঠানটি তিন বছরে মাত্র ৩০ শতাংশের বেশি কাজ করতে না পারায় আল আমিন কনস্ট্রাকশন নামে আরেকটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানে দায়িত্ব দেওয়া হয়। বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রকল্পকাজের তদারক করছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top