সই দিয়ে ঐক্যের যাত্রা করলেন বি. চৌধুরী ও ড. কামাল

195338_1-8.jpg

নিউজ ডেস্ক।।

প্রকাশ্য মঞ্চে হাত তুলে বা গণমাধ্যমে যৌথ বিবৃতি দিয়ে নয়,এবার নিজেরা ‘সমঝোতাপত্রে’ সই করে ঐক্যবদ্ধ থাকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছেন অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী ও ড. কামাল হোসেন। তারা দু’জনেই সব গণতান্ত্রিক, দেশপ্রেমিক শক্তি ও সুশীলসমাজের প্রতিনিধিসহ সব শ্রেণি-পেশার প্রতিনিধিদের দেশের বৃহত্তর স্বার্থে যুগপৎ আন্দোলনের আহ্বান জানিয়েছেন।
গত বুধবার (৯ মে) রাতে রাজধানীর বারিধারায় প্রেসিডেন্ট পার্কে (বি চৌধুরীর বাসভবন) এক ঘরোয়া বৈঠকে তারা দুজনে এক থাকার অঙ্গীকার করেন।
বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী লিখিতভাবে ‘সুষ্ঠু, অবাধ ও প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্র ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে ঐক্যবদ্ধ থাকবেন বলে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হন’ দেশের প্রবীণ এই দুই রাজনীতিবিদ। শিরোনামহীন একটি খসড়ায় বি চৌধুরী ও ড. কামাল হোসেন দুজনেই স্বাক্ষর করেন।
এই দুই রাজনীতিকের ঘনিষ্ঠ সূত্রে জানা গেছে, বুধবার (৯ মে) বারিধারার বৈঠকে ঐকমত্য হওয়ার পরদিন সকালে লিখিত সমঝোতাপত্রে স্বাক্ষর করেন ড. কামাল হোসেন। লিখিত সমঝোতাপত্রটি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও বিকল্প ধারার সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার ওমর ফারুক নিয়ে যান ড. কামালের বেইলি রোডের বাসায়। স্বাক্ষরের পর ওই দিন (১০ মে, বৃহস্পতিবার) সকালেই যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে দেশত্যাগ করেন ড. কামাল। একইদিন বিকালে সমঝোতাপত্রে স্বাক্ষর করেন বি চৌধুরী।
জানতে চাইলে ব্যারিস্টার ওমর ফারুক বাংলা ট্রিবিউনকে দুই নেতার এই সমঝোতা স্বাক্ষরের সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘সাবেক রাষ্ট্রপতি বি চৌধুরী ও ড. কামাল হোসেন দুজনেই একটি লিখিত কাগজে স্বাক্ষর করেছেন। তারা দুজনেই প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছেন যে, ঐক্যবদ্ধভাবে সুশাসন প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে অংশ নেবেন।’
শুক্রবার (১১ মে) সন্ধ্যায় বি চৌধুরীও বিষয়টির কথা উল্লেখ করেন এক আলোচনা সভায়। তিনি বলেন, ‘ড. কামাল হোসেন ওয়াদা দিয়েছেন, গণতন্ত্রের জন্য একসঙ্গে কাজ করবেন আমার সঙ্গে। তিনি আমার সঙ্গে কাজ করবেন জাতীয় বৃহত্তর স্বার্থে। এটা শুভ লক্ষণ।’
বুধবার (৯ মে) রাতে ড. কামাল হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেছেন, ‘আমরা আলোচনা করেছি। সবার কাছে আমাদের প্রস্তাব ছিল— সবাই মিলে আমরা একটা আহ্বান উপস্থাপন করবো। ঐক্যবদ্ধভাবে আমরা সেই দাবিটিকে মানুষের কাছে ছড়িয়ে দিতে চাই। দুই-চার দিনের মধ্যে এটা হয়ে যাবে, আশা করি।’
বি চৌধুরী ও ড. কামাল হোসেনের সমঝোতাপত্রে বলা হয়েছে, ‘যুক্তফ্রন্টের প্রেসিডেন্ট, সাবেক রাষ্ট্রপতি ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী ও গণফোরাম সভাপতি এবং সংবিধান প্রণেতা ড. কামাল হোসেন আজ বুধবার (৯ মে) অধ্যাপক বি চৌধুরীর বাসভবনে মিলিত হন।
সভায় উভয়নেতা দেশের বর্তমান রাজনৈতিক ও শাসনতান্ত্রিক সংকট, চরম দুর্নীতি, বিচার বিভাগের নিরপেক্ষতা ও স্বাধীনতার ওপর নগ্ন হস্তক্ষেপসহ সব অন্যায়-অবিচার থেকে জনগণের সত্যিকারের মুক্তি ও দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হন।
তারা দুই নেতা দেশের সব গণতান্ত্রিক, দেশপ্রেমিক শক্তি ও সুশীলসমাজের প্রতিনিধিসহ সব শ্রেণি পেশার প্রতিনিধিদের দেশের বৃহত্তর স্বার্থে যুগপৎ আন্দোলনের আহ্বান জানান।
শুধু ক্ষমতার পরিবর্তনের জন্য আন্দোলন না করে রাজনীতির গুণগত পরিবর্তনের জন্য আন্দোলন করার অঙ্গীকার করেন।
সুষ্ঠু, অবাধ ও প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্র ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে ঐক্যবদ্ধ থাকবেন বলে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হন।’’
এই সমঝোতাপত্রের নিচে বি চৌধুরী ও ড. কামাল হোসেন স্বাক্ষর করেন।
উল্লেখ্য, ২০১২ সালে একবার, পরের বছর আরেকবার ও ২০১৭ সালে দুবার জাতীয় ঐক্যের ডাক দেন বিকল্প ধারার সভাপতি বি চৌধুরী ও গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top