জুলাইয়ে কক্সবাজার পৌরসভা নির্বাচন

Screenshot_2018-05-04-21-23-52-452_com.facebook.katana.jpg

দিসিএম

আগামী জুলাই মাসের শেষের দিকে কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই লক্ষে আগামী রোজার ঈদের পরে কক্সবাজার পৌর নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করা হবে। কক্সবাজার পৌর নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে কক্সবাজার নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের সচিব মোঃ হেলাল উদ্দিন আহম্মেদ। আজ কক্সবাজার বিমানবন্দরে নির্বাচন কমিশনের সচিবের সাথে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসন ও জেলা নির্বাচন অফিসের কর্মকর্তারা সৌজন্য সাক্ষাত করতে গেলে নির্বাচন কমিশন সচিব হেলাল উদ্দিন আহম্মেদ এই নির্দেশনা দেন।

বিমানবন্দরে নির্বাচন কমিশনের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে উপস্থিত একটি সূত্রে জানিয়েছে, নির্বাচন কমিশন সচিব হেলাল উদ্দিন আহম্মেদ রোজার ঈদের পর কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচনের তফসিল ঘোষনা করা হবে বলে জানান। নির্বাচনের সুনির্দিষ্ট তারিখ নির্ধারন না হলেও জুলাইয়ের শেষে বা আগষ্টের শুরুর দিকে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে বলে জানা গেছে। পৌর নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ও জেলা নির্বাচন অফিসকে নির্দেশনা দেন নির্বাচন কমিশনের সচিব।

কক্সবাজারে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ মোজাম্মেল হোসেন জানিয়েছেন, রোজার ঈদের পরে কক্সবাজার পৌর সভার তফসিল ঘোষনা করা হবে। নির্বাচনেরর প্রস্তুতি নিতে কমিশনের সচিব আজ নির্দেশনা দিয়েছেন। তবে নির্বাচনের তারিখ এখনো নির্ধারন হয়নি বলে তিনি জানান।

কক্সবাজার পৌরসভার সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০১১ সালের ২৭শে জানুয়ারী। ৪ ফেব্রুয়ারি নির্বাচিতদের গেজেট প্রকাশিত হয়। একই বছরের ১৯শে ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনের কার্যালয়ে নির্বাচিতদের শপথ গ্রহণের সময় নির্ধারিত ছিল। অন্যান্য পৌরসভার নির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলররা শপথ গ্রহণ করলেও ৪ দফা সময় পরিবর্তনের পরেও শপথ গ্রহণ হয়নি। ফলে আগের পৌর পরিষদ দীর্ঘ আড়াই বছর বাড়তি দায়িত্ব পালন করে।

পৌরসভার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের শপথ গ্রহণের দাবীতে ২০১৩ সালের ২৭শে জানুয়ারি কক্সবাজারে হরতাল পালন করে। পরে ২০১৩ সালের ২০শে জুলাই নির্বাচিত পৌর মেয়র ও কাউন্সিলরদের শপথ বাক্য পাঠ করান জেলা প্রশাসক।

শপথ নিয়ে দায়িত্ব নেয়ার পর নির্বাচিত মেয়র সরওয়ার কামাল বেশিদিন দায়িত্ব পালন করতে পারেননি। তার বিরুদ্ধে একাধিক নাশকতার মামলা ও দুর্নীতির মামলার অভিযোগপ্রত্র আদালত গ্রহণ করায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় মেয়র সরওয়ার কামালকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করে। পরবর্তীতে মন্ত্রণালয় ২০১৫ সালের ২৪শে নভেম্বর প্যানেল মেয়রকে দায়িত্ব গ্রহণ করতে চিঠি ইস্যু করেন। প্যানেল মেয়র-১ জিসান উদ্দিন ও প্যানেল মেয়র-২ রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে নাশকতার মামলা থাকায় তারাও দায়িত্বভার নিতে পারেননি। প্যানেল মেয়র-৩ কোহিনুর ইসলাম সহ অন্যান্য কাউন্সিলাররা বর্তমান ভারপ্রাপ্ত মেয়র মাহবুবুর রহমান চৌধুরীকে সমর্থন করায় মন্ত্রণালয় মাহবুবুর রহমান চৌধুরীকে ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসাবে দায়িত্ব প্রদান করেন।

সূত্র-কক্সবাজার প্রেস।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top