পদ্মাসেতুতে চীনের সাথে ২৭৬ কোটি ডলারের চুক্তিতে সই করল বাংলাদেশ

31093413_1823165784413290_2042627896983420928_n-14.jpg

নিউজ ডেস্ক।।

বহুল প্রত্যাশিত পদ্মসেতুর সংযোগ প্রকল্প বাস্তবায়নে চীনের এক্সিম ব্যাংকের সাথে ২৭৬ কোটি ডলারের ঋণচুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে বাংলাদেশ।

শুক্রবার (২৭ এপ্রিল) সকালে বেইজিংয়ে এই চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সন্ধ্যায় রেলপথ মন্ত্রণালয় থেকে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বাংলাদেশের পক্ষে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. জাহিদুল হক ও চায়না এক্সিম ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট সুন পিং এই চুক্তিতে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। চুক্তি স্বাক্ষর উপলক্ষে জাহিদুল হকের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের প্রতিনিধি দল এখন চীনে অবস্থান করছে।

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পটি অনুমোদন হয় ২০১৬ সালের ৩ মে। এতে ব্যয় ধরা হয় ৩৪ হাজার ৯৮৮ কোটি টাকা। শুরুতে এ প্রকল্পে শতভাগ অর্থায়নে রাজি ছিল চীনের এক্সিম ব্যাংক।

পরবর্তীতে সে সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে তারা। ৩৪ হাজার ৯৮৮ কোটি টাকার মধ্যে এক্সিম ব্যাংক ২৪ হাজার ৭৪৯ কোটি টাকা ঋণ দিতে সম্মত হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) মাধ্যমে গত বছরের ৮ আগস্ট চতুর্থ দফায় সংশোধিত ঋণ প্রস্তাব পাঠায় রেলওয়ে। এতে চীনের এক্সিম ব্যাংকের কাছে মোট ২৬৬ কোটি ৮৯ লাখ ৪০ হাজার ডলার ঋণ চাওয়া হয়। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ওই বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর চীনের এক্সিম ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ ঋণ প্রস্তাবটি অনুমোদন করে।

সূত্র জানায়, ২০১৬ সালের অক্টোবরে চীনের প্রেসিডেন্টের বাংলাদেশ সফরের সময়ই পদ্মা সেতুতে রেল সংযোগ প্রকল্পে অর্থায়নে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর হয়। কিন্তু নানা কারণে অর্থায়ন নিয়ে দেখা দেয় জটিলতা। এজন্য চুক্তি স্বাক্ষরে দেরি হতে থাকে। অবশেষে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজিবিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদের হস্তক্ষেপে সুদ ও শর্ত সংক্রান্ত জটিলতা কেটে যায়। এ ঋণ বিষয়ে এ বছর ফেব্রুয়ারিতে চীনের স্টেট কাউন্সিল ও প্রেসিডেন্টের অনুমোদন মিলে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top