সদর হাসপাতালের তিন চিকিৎসককে মারধরের ঘটনায় চিকিৎসারত যুবককে আটক করলো পুলিশ

Screenshot_2018-04-17-19-22-17-710_com.facebook.katana.jpg

দিসিএম ডেস্ক

কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসায় অবেহেলার অভিযোগ তুলে তিন ইন্টার্নি চিকিৎসককে রোগীর স্বজনদের মারধরে ঘটনায় চিকিৎসাধীন থাকা মাহমুদ হোসেন নামে এক যুবককে আটক করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৭ এপ্রিল) বিকাল ৪টার দিকে কক্সবাজার ফুয়াদ আল খতীব হাসপাতাল থেকে চিকিৎসার পর তাকে আটক করে কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশ।

সূত্র জানান, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে কলাতলিতে একটি বাড়িতে অগ্নিকান্ডের ঘটনায় গুরুতর জখম হয়ে মাহমুদ হোসন সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসেন। ওই সময় হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকের বিড়ম্বনার অভিযোগে মাহমুদ হোসেনের স্বজনরা সদর হাসপাতালের ইন্টার্নি চিকিৎসক শেফায়েত হোসেন আরাফাতকে মারধর করেন। ওই সময় তাকে বাঁচাতে গিয়ে মারধরের শিকার হন আরেক ইন্টার্নি চিকিৎসক তাওহীদ ইবনে আলাউদ্দিন।

এ বিষয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফরিদ উদ্দিন খন্দকার কক্সবাজার ভিশন ডটকমকে জানান, সদর হাসপাতালের ইন্টার্নি চিকিৎসকদের অভিযোগের ভিত্তিতে মাহমুদ হোসেন নামে এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।

এদিকে ধৃত মাহমুদ হোসেনের স্ত্রী রেহানা আক্তার বলেন, ‘আমার স্বামী গুরুতর জখম হয়ে সদর হাসপাতালে নিতে আসলে হাসপাতালের চিকিৎসরা চরম অবহেলা করেছেন।’

রেহানার দাবি, শরীরের জখম স্থানে জরুরি অপারেশন করতে বললেও চরম বিড়ম্বনা দেন ইন্টার্নি চিকিৎসকরা। তবে আমরা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা না পেয়ে আল ফুয়াদ হাসপাতালে চলে আসি। এরপর কারা হাসপাতালের ইন্টার্নি চিকিৎসকদের উপর হামলা করেছেন আমরা জানি না।

মাহমুদ হোসেনের স্ত্রী জানান, তার স্বামী গুরুতর আহত। ভালো করে হাঁটতেও পারছেন না। জোর করে আল ফুয়াদ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ চিকিৎসাধীন অবস্থায় সিট কেটে দিয়ে তাদের তাদের হাসপাতাল ছাড়তে বাধ্য করে। পরে সদর মডেল থানা পুলিশ আল ফুয়াদ হাসপাতাল থেকে তার স্বামীকে থানায় নিয়ে আসে।

এ ব্যাপারে ফুয়াদ আল খতীব হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top