চকরিয়ায় অপহরণের ৫ঘন্টা পর রামুর সিএনজি অটোরিক্সা চালক উদ্ধার, গ্রেপ্তার ১

download-17.jpg

এম মনছুর আলম, চকরিয়া :
চকরিয়া পৌর শহরের শহীদ আব্দুল হামিদ পৌর বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে শনিবার ভোর চারটার দিকে অপহরণের পাঁচ ঘণ্টা পর এক যুবককে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় অপহরণের অভিযোগে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর আগে শুক্রবার রাত ১১টার দিকে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়া উপজেলার ভাঙারমুখ পালাকাটা সড়কের মাথা থেকে ওই যুবককে মোটরসাইকেলসহ অপহরণ করা হয়। গ্রেপ্তার ব্যক্তি জাহিদ হোসেন ওরফে বাবলু (৩২) চকরিয়া উপজেলার নিজপানখালী গ্রামের অলি মিয়ার ছেলে।

পুলিশ ও অপহৃত যুবকের পরিবারের লোকজন জানায়, কক্সবাজারের রামু উপজেলার গর্জনিয়া পাড়া এলাকার লাল মিয়ার ছেলে মো. ইলিয়াছ মিয়া গত শুক্রবার দুপুরে তাঁর শ্বশুরবাড়ি চকরিয়া উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের লুটনী এলাকায় বেড়াতে যান। ওই দিন রাতে দাওয়াত খেয়ে মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফেরার পথে ভাঙারমুখ পালাকাটা সড়কের মাথা এলাকায় তিনটি মোটরসাইকেলযোগে ছয় ব্যক্তি তাঁর গতিরোধ করে। একপর্যায়ে ইলিয়াছ মিয়াকে অপহরণ করা হয়।

চকরিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) ইয়াসির আরাফাত বলেন, অপহরণকারী চক্র অপহৃত ব্যক্তির স্ত্রী ফোরকানা আকতারের মুঠোফোনে ফোন করে এক লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। ফোরকানা আকতার পুলিশের সাহায্য নিলে পুলিশ প্রযুক্তি ব্যবহার করে অপহরণকারী চক্রের অবস্থান শনাক্ত করে। একপর্যায়ে পুলিশ অভিযান চালিয়ে শহীদ আব্দুল হামিদ পৌর বাস টার্মিনাল এলাকা থেকে অপহৃতকে উদ্ধার ও একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

চকরিয়া থানার ওসি মো. বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, অপহৃতের স্ত্রী ফোরকানা আকতার বাদী হয়ে ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। অপহরণের অভিযোগে গ্রেপ্তার জাহিদ হোসেনকে আজ রবিবার চকরিয়া উপজেলা সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top