বিনা বেতনে স্কুলে পড়ার সুযোগ পেল কঠিন রোগে আক্রান্ত লিয়াকতের দুই মেয়ে

Screenshot_2018-04-09-14-39-56-940_com.facebook.katana.jpg

এম আবুহেনা সাগর, ঈদগাঁও:
দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ লিয়াকতের দুই মেয়ে তাজমিয়া তাহমিকা মনি এবং ফাবিহা জান্নাত বিনা বেতনে লেখাপড়া সুযোগ পেয়েছে।তারা দুই বোন কক্সবাজার সদরের ইসলামপুর নাপিতখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নিয়মিত ছাত্রী।

ঈদগাহ রিপোর্টার্স সোসাইটির সাবেক ও বর্তমান দুই দায়িত্বশীলের একান্ত আবেদনের প্রেক্ষিতে তাদের এই সুযোগ করে দেয় স্কুল কর্তৃপক্ষ।

তাজমিয়া তাহমিকা মনি অষ্টম এবং ফাবিহা জান্নাত ৬ষ্ট শ্রেনীতে পড়ে।

তাদের বাবা লিয়াকত আলী দেশের দ্বিতীয় লবণ শিল্প নগরী খ্যাত ইসলামপুরের ব্যবসায়ী। বর্তমানে কঠিন তিনি রোগে আক্রান্ত হয়ে বিছানায় কাতরাচ্ছেন।

দুই দফা অপারেশন করেও অধ্যবদি পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেনি লিয়াকত। সে থেকে এই পর্যন্ত তাঁর অসুস্থজনিত কারনে আনুমানিক ১৪/১৫ লক্ষাধিক টাকা খরচ করেও কোন কূল কিনারা হয়নি। এমনকি ধন সম্পদ যা ছিল, তা সম্পূর্ণ শেষ হয়ে গেছে।বলতে গেলে এখন নিঃস্ব এককালের পরিচিত ব্যবসায়ী লিয়াকত আলী।

৯ এপ্রিল সকাল এগারটার দিকে ঈদগাহ রিপোর্টার্স সোসাইটির সাবেক সভাপতি এম আবুহেনা সাগর ও বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক মফিজুল ইসলাম মফি বিদ্যালয়ে গিয়ে প্রধান শিক্ষক মো. শহিদুল ইসলামকে মানবিক দৃষ্টিকোণ দিয়ে একান্তভাবে অনুরোধ করেন।

প্রধান শিক্ষকও তাদের অনুরোধ রক্ষা করে অসহায় পিতার দুই কন্যাকে বিনা বেতনে পড়ার সুযোগ করে দেন। বিদ্যালয় প্রধানের অকটু উদারতায় দুই মেয়ের অনিশ্চিত হওয়া লেখাপড়া ফের আলোর মুখ দেখায় প্রধান শিক্ষকসহ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন পরিবার পরিজন।

আবার তাজমিয়া এবং ফাবিহা শিক্ষা জীবন ফিরে পাওয়ায় মহাখুশিতে উৎফুল্ল হয়ে পড়ে। তারাও অন্যদের মত ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার বা শিক্ষক হওয়া স্বপ্ন দেখছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top