উঞ্চিপ্রাং গৃহবধু নিহতের ঘটনায় শশুর আটক

FB_IMG_1523215063986.jpg

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ
টেকনাফের হোয়াইক্যং উঞ্চিপ্রাং এলাকায় এক গৃহবধুকে নির্মমভাবে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল স্বামীর বাড়ি হতে ওড়না লাগিয়ে ফাঁস লাগানো অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করেন। নিহত গৃহবধু ৩নং ওয়ার্ডের উনচিপ্রাং এলকার মোঃ রুবেলের স্ত্রী ও নয় মাসের সন্তান সম্ভাবা রুজিনা আক্তার (২৬)। ৭ এপ্রিল রাতে এ ঘটনা ঘটে। পিতা বাদী হয়ে টেকনাফ মডেল থানায় যৌতুকের দায়ে হত্যার অভিযোগ এনে একটি মামলা রুজু কেেছন। মামলা নং ২৩/ ৮.৪.২০১৮। এ মামলার আসামী গৃহবধুর শশুর আবু বক্কর প্রকাশ নুইন্নাকে হোয়াইক্যং ফাঁড়ী পুলিশ ৮ এপ্রিল আটক করেছে।
নিহত গৃহবধু রুজিনা আক্তারের পারিবারিক সুত্রে জানা গেছে, হোয়াইক্যং ইউনিয়নের ঝিমংখালী এলাকার গোলাম হোসেনের কন্যা রুজিনা আক্তারের সাথে উঞ্চিপ্রাংয়ের মোঃ রুবেলের সাথে বিয়ে হয়। এদের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বিয়ের ৩ বছর পর স্বামী পরকিয়ায় আসক্ত হওয়া নিয়ে পারিবারিক কলহ সৃষ্টি হওয়ায় একাধিকবার সালিশে বসতে হয়েছে বলে জানান উভয় পক্ষের আতœীয় সিরাজুল ইসলাম। তিনি আরও জানান, ছেলেটি ইয়াবা আসক্ত ছিল। সব সময় যৌতুক দাবী করে রুজিনা আক্তারকে নির্যাতন করে আসছিল। হোয়াইক্যং ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মোঃ শাহ আলম মেম্বার জানান, ইউনিয়ন পরিষদে বাদী হয়ে রুজিনা আক্তার একটি আবেদন করেন। একাধিকবার নোটিশ দেওয়ার পরেও তাঁর স্বামী পরিষদে হাজির হননি। বিচারের দিন ধার্য থাকায় মারা যাওয়ার ৫ ঘন্টা আগেও পরিষদ থেকে স্বামীর বাড়িতে চলে যান রুজিনা আক্তার। নির্মমভাবে হত্যা করে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আতœহত্যা বলে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে রুজিনার পিতা দাবি করেন।
হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁড়ীর ইনচার্জ এসআই মোঃ শাহাজাহান জানান, গৃহবধুর আতœ হত্যার খবর শুনে তাঁর নেতৃত্বে একটি দল ঘটনাস্থল থেকে ওড়ানা দিয়ে ফাঁস লাগানো অবস্থায় লাশটি উদ্ধার করা হয়। ঘটনাটি হত্যা না আতœহত্যা তা ময়না দতন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পরই বলা যাবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top