অবশেষে প্রাণে বেঁচে গেল কুতুবদিয়ার এক প্রেমিকা

Screenshot_2018-03-19-09-56-01-284_com.facebook.katana.png

দিসিএম ডেস্ক

অবশেষে প্রাণে বেঁচে গেল প্রেমিকের উপর্যপুরি ছুরিকাঘাতে মারাত্মক আহত প্রেমিকা প্রিয়া। সে এখন কুতুবদিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে। চকরিয়া উপজেলার হারবাং ষ্টেশন পাড়ার সাধন মল্লিকের মেয়ে প্রিয়া মল্লিক (১৯)। মা মরা মেয়েটি বেঁচে থাকার তাগিদে চট্টগ্রামের কালুরঘাট শিল্প এলাকায় একটি গার্মেন্টসে কাজ করত। এক সময় তার সাথে পরিচয় হয় বাশঁখালি মৌলভীর দোকান এলাকার মেম্বার রশীদ এর নাতী ফিশিং শ্রমিক হাসানের সাথে। পরিচয় থেকে ভাললাগা তারপর প্রেম। হাসানের বিয়ের প্রলোভনে ধর্মান্তরিত হয় প্রিয়া। গত ১৪ মার্চ বাশঁখালীর বোটখালি সখিনার কলোনীতে একটি ভাড়া বাসায় তাকে নিয়ে আসে হাসান। খবর পেয়ে হাসানের মা ভাড়া বাসায় গেলে প্রকাশ পায় হাসানের প্রতারণা। প্রিয়া জানরত পারে হাসানের স্ত্রী ও সন্তান আছে। এবিষয় নিয়ে দু’জনের মধ্যে তর্কও হয়।

হাসান এবং আরো ২ বন্ধু মিলে গত শনিবার (১৭ মার্চ) সন্ধ্যায় নানার বাড়ি বেড়াতে যাবে বলে কুতুবদিয়া বায়ু বিদ্যুৎ এলাকায় নিয়ে আসে প্রিয়াকে। কিছুক্ষণ ঘুরাঘুরির পর সন্ধ্যার অন্ধকারে বায়ু বিদ্যুৎ সংগলগ্ন বেড়িবাঁধের ব্লকের পাশে নিয়ে প্রিয়াকে ছুরিকাঘাত করে পাথরে ধাক্কা মেরে ফেলে দেয়। প্রিয়ার মুখ থেতলে দেয়ার জন্য অপর একটি পাথর আনতে গেলে প্রিয়া জীবনপণ ছুটে পালিয়ে তাবালের চর নয়াপাড়া রাস্তা পর্যন্ত গিয়ে অজ্ঞান হয়ে পড়ে থাকে। এসময় পার্শ্ববর্তী বিধবা মিনুয়ারা প্রিয়ার গোঙ্গানীর শব্দ পেয়ে তাকে উদ্ধার করে। পরে পুলিশ এবং স্থানীয়দের সহযোগীতায় রাত সাড়ে ১০টার দিকে তাকে হাসপাতালে এনে ভর্তি করানো হয়।

 

আপনার মন্তব্য লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top