কক্সবাজার সরকারি কলেজের জমি দখলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশ

-ইব্রাহিম-5.jpg

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:
জেলার সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ কক্সবাজার সরকারি কলেজের জমি অবৈধভাবে দখলবাজদের বিরুদ্ধে ১৮ মার্চ সকাল ১১টায় জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। কক্সবাজার কলেজের সাবেক ছাত্রনেতা কামাল উদ্দীন রহমান পিয়ারুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নাজনীন সরওয়ার কাবেরী। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সাবেক ছাত্রনেতা নূরুল কবির হেলাল, এড. মো. সেলিম, কলেজ ছাত্রনেতা রাজিবুল ইসলাম, খাইরুল আমিন, সৌরভ, ওয়াসিম, সজিব প্রমুখ।
কলেজের ছাত্র দিনুর দিনুর আলমের সঞ্চালনায় ওই প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নাজনীন সরওয়ার কাবেরী বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ইতিহাস দেশ ও জনগনের অধিকার আদায়ের ইতিহাস। বাংলাদেশের মানুষকে শোষণ ও নির্যাতন থেকে মুক্ত করার জন্য ১৯৭১ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু নেতৃত্ব দিয়ে দেশেকে স্বাধীন করেছিলেন।
তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুরো পৃথিবীতে সততায় তৃতীয় স্থান লাভ বিশ্ব নেতৃত্বের মর্যাদা লাভ করেন। বাংলাদেশ ও কক্সবাজারকেও এগিয়ে নেয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিরলস পরিশ্রমক করে যাচ্ছে। কিন্তু দু:খের বিষয় কক্সবাজারের কিছু ভূমিদস্যু এখানকার মূল্যবান সম্পদ রাতারাতি দখলে লিপ্ত হয়েছে। জেলার সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ কক্সবাজার সরকারি কলেজের মালিকানাধীন ভূমি গত এক বছর আগে জঙ্গি সালাহুল নামক এক ব্যক্তি, যিনি বহুবার পরিবেশ ও জঙ্গিসহ বিভিন্ন মামলায় জেল কেটেছেন- তিনি উচ্চ ক্ষমতার ব্যক্তিদের সহায়তায় বন্দোবস্তি নিয়ে মাদ্রাসা স্থাপন করেন। বর্তমানে কুদরত উল্লাহ ও এফাজ উল্লাহ নামক ভূমিদস্যুরা কলেজের পেছনে দখলকৃত জমিতে বাণিজ্যিক রাস্তা স্থাপনের জন্য রাতের আঁধারে পাহাড় কেটে ডাম্পার দিয়ে মাটি ভরাট করে কলেজে জায়গা দখল করেছে। ইতিমধ্যে এই বিষয়ে বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। কলেজ ছাত্রলীগের নাম ব্যবহার করে শিক্ষকদের ভয়ভীতি দেখিয়ে জিম্মি করে দখলে নিয়োজিত রয়েছে।
কাবেরী আরো বলেন, আমি কলেজের সম্পদ রক্ষায় ভূমিকা নিচ্ছি বলেই ১৭ মার্চ আমার উপর অনাকাঙ্খিত অশালীন আচরণ করে ছাত্রলীগের নামধারী কিছু বেয়াদব ছেলে। পাশাপাশি উপস্থিত শিক্ষকদেরও লাঞ্ছিত করে।’
এই প্রেক্ষাপটে কক্সবাজারের সচেতন নাগরিক সমাজ এই বিশাল প্রতিবাদ সমাবেশ আয়োজন করেন। প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে কলেজের সম্পদ রক্ষার জন্য জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এসময় জেলা প্রশাসক কামাল হোসেন জানান, কলেজের জমি দখলের বিষয়ে যথাযত ব্যবস্থা দ্রুত গতিতে নেয়া হবে। প্রতিবাদ সভায় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও অঙ্গসংগঠনের বিপুল নেতাকর্মী অসংখ্য লোকজন উপস্থিত হন। উপস্থিত সকলে কলেজের জমি দখলে ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান এবং দ্রুত দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য দাবি জানান।

আপনার মন্তব্য লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Top