নাইজেরিয়ার মাছবাজারে বিমান হামলায় নিহত ৫০

airstrike.jpg

নাইজেরিয়ার একটি গ্রামীণ মাছবাজারে বিমান থেকে বোমাবর্ষণ করেছে দেশটির বিমান বাহিনী। ভয়াবহ সেই আক্রমণে নারী-শিশুসহ কয়েক ডজন বেসামরিক নাগরিকের প্রাণহানি ঘটেছে।

ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়, গেল রোববার দেশটির পশ্চিমাঞ্চলীয় দাবান মাসারা গ্রামের ওই মাছবাজারে বিমান বাহিনীর দুইটি যুদ্ধবিমান থেকে বোমাবর্ষণ করেছে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

হামলার শিকার হুসাইনি নামের এক ব্যক্তি রয়টার্সকে বলেছেন, ‘তাৎক্ষণিকভাবে অন্তত ৫০ জন প্রাণ হারিয়েছেন। নিহতদের মধ্যে আমার একজন বন্ধুও রয়েছেন। মাত্র তিন মাস আগেই তার বিয়ে হয়েছিল।’

হুসাইনি জানিয়েছেন, এবারের হামলায় তিনি নিজেও আহত হয়েছেন। গোলার আঘাতে তার পা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে ব্রিটিশ মিডিয়া বিবিসি নিউজ জানায়, দাবান মাসারা গ্রামের মানুষদের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ মৎস্যজীবী। গ্রামের নিকটবর্তী শাদ হ্রদে মাছ ধরাই তাদের প্রধান জীবিকা।

প্রতিবেদনে আরও জানানো হয়, হ্রদ ও তার আশপাশের এলাকা বর্তমানে নিয়ন্ত্রণ করছে আন্তর্জাতিক জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক টেস্ট ওয়েস্ট আফ্রিকা প্রভি (আইএসডব্লিউএপি)। তারা অর্থের বিনিময়ে ওই হ্রদ থেকে স্থানীয়দের মাছ ধরার অনুমতি দিয়েছিল।

আইএসডব্লিউএপির অর্থ সংগ্রহ বন্ধ করতে ওই হ্রদে মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা দিয়েছিল দেশটির সামরিক বাহিনী, যারা গত ১২ বছর যাবত নাইজেরিয়ার জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে লড়াই চালাচ্ছে।

যদিও নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও স্থানীয়রা সেখানে মাছ ধরে আসছিলেন বলে জানিয়েছেন দাবান মাসারা গ্রামের এক বাসিন্দা।

পরিচয় গোপন রাখার শর্তে ওই বাসিন্দা রয়টার্সকে বলেন, হামলায় যারা নিহত হয়েছেন, তারা একেবারেই সাধারণ মানুষ। ঘটনাটি পুরোপুরি ভুল সিদ্ধান্তের ফল। নিরাপত্তা বাহিনীর নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে স্থানীয়রা হ্রদে মাছ শিকার করতে গিয়েছিলেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন