ধর্ষণের অভিযোগের বিরুদ্ধে বিজিবির মানহানি মামলায় আসামির নামে সমন

image-192440.jpg

কক্সবাজারে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ-বিজিবির চেকপোস্টে দিনদুপুরে ধর্ষণের অভিযোগ আনা ব্লাস্ট এনজিও কর্মীর বিরুদ্ধে বিজিবির দায়েরকৃত ১০০ কোটি টাকার মানহানি মামলার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে পুলিশ। পরে শুনানি শেষে আসামিকে আগামী ১৪ জানুয়ারি আদালতে হাজির হওয়ার নিদের্শ (সমন জারি) দিয়েছেন আদালত।

রবিবার দুপুরে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট-৩ এর বিচারক মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিনের আদালতে ওই প্রতিবেদন দাখিল করলে তিনি এ নির্দেশ দেন।

আদালতে বিজিবির পক্ষে উপস্থিত ছিলেন অ্যাডভোকেট সাজ্জাদুল করিম ও জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট জিয়া উদ্দিন আহমেদ।

পরে গণমাধ্যমকর্মীদের তিনি বলেন, বিভিন্ন মাধ্যমে অপপ্রচার চালিয়ে এনজিওকর্মীটি বিজিবির মতো একটি বাহিনীর মানহানি করেছে। তদন্ত প্রতিবেদনে মিথ্যা অভিযোগের বিষয়টি উঠে এসেছে। পরবর্তী ধার্য তারিখে মামলার শুনানি হবে। ১৪ জানুয়ারি আসামিকে আদালতে হাজিরের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

প্রতিবেদন জমার সময় আজ আদালতে উপস্থিত ছিলেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)এর জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. শরিফুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্টরা।

গত ৮ অক্টোবর টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) এর অধীনস্থ দমদমিয়া চেকপোস্টে অটোরিকশা যাত্রী ব্লাস্ট এনজিওকর্মী ফারজানা আক্তারকে তল্লাশি করেন বিজিবি সদস্যরা। এ ঘটনায় বিজিবি সদস্যদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তুলেন ওই এনজিওকর্মী। ঘটনাটি মিথ্যা দাবি করে গত ১০ নভেম্বর কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ফারজানা আক্তারের বিরুদ্ধে ফৌজদারি ৫০০ ধারায় ১০০ কোটি টাকার মানহানির মামলা দায়ের করেন বিজিবির নায়েব সুবেদার মোহাম্মদ আলি মোল্লা। মামলা নং সিআর-২৯৭/২০।

মামলাটি তদন্ত করেন টেকনাফ থানার ওসি (অপারেশন) ইন্সপেক্টর শরিফুল ইসলাম।

আপনার মন্তব্য লিখুন