চেন্নাইয়ে ৯ সিংহের করোনা শনাক্ত, মারা গেল ‘নীলা’

prothomalo-bangla_2021-06_fd1ec152-0bc2-43dc-b4b8-49f3e9c3f3f0_Untitled_1.jpg

করোনা শনাক্ত হওয়ার পরে ভারতের তামিলনাড়ু রাজ্যের চেন্নাইয়ের একটি চিড়িয়াখানায় ‘নীলা’ নামের এক সিংহী মারা গেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মারা যায় ‘নীলা’। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ দ্বিতীয়বার করোনা পরীক্ষার জন্য নীলার শরীর থেকে নমুনা পাঠিয়েছে। নীলা ছাড়াও চিড়িয়াখানাটিতে আরও আটটি সিংহের করোনা শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। খবর এনডিটিভির।

চেন্নাইয়ের দক্ষিণ–পশ্চিমাঞ্চলের ভান্দালুরে আরিগনার আন্না জুওলজিক্যাল পার্কের (ভান্দালুর চিড়িয়াখানা নামে পরিচিত) বাসিন্দা নীলা। এক বিজ্ঞপ্তিতে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ছয়টা নাগাদ নীলা মারা যায়। মারা যাওয়ার আগে প্রাণীটির মধ্যে করোনার গুরুতর কোনো লক্ষণ ছিল না। শুধু নাক থেকে পানি ঝরতে দেখা গেছে। দ্রুত করোনা পরীক্ষা করে চিকিৎসা শুরু করা হয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বাঁচানো যায়নি নীলাকে।

করোনা শনাক্ত হওয়া সিংহদের চিড়িয়াখানার ভেতরেই পশু চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে বলে জানান চিড়িয়াখানাটির একজন কর্মকর্তা। তিনি বলেন, তামিলনাড়ু ভেটেনারি অ্যান্ড অ্যানিমেল সায়েন্সেস ইউনিভার্সিটি এ বিষয়ে সমন্বয় করে কাজ করছে। পরে আরও একটি সিংহ ও চিড়িয়াখানায় থাকা সব বাঘের নমুনা করোনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, অনেক সময় করোনার পরীক্ষার ফল ভুল আসে। এ কারণে দ্বিতীয়বার পরীক্ষার জন্য নীলার নমুনা পাঠানো হয়েছে। পরীক্ষার ফল হাতে এলে চূড়ান্তভাবে বলা যাবে, নীলার মৃত্যু করোনায় হয়েছে নাকি অন্য কোনো কারণে।

চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রাণীদের সুরক্ষায় সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। যাঁরা পশু–পাখিদের দেখভালের কাজ করেন, তাঁদের করোনার টিকা দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি সিংহের সেবায় আলাদা আলাদা লোক দায়িত্ব পেয়েছেন। পশু চিকিৎসক, দেখভালকারী, মাঠপর্যায়ের কর্মী—সবাই পিপিই পরে তবেই কাজে নিযুক্ত হচ্ছেন।

এর আগে হায়দরাবাদ চিড়িয়াখানায় মে মাসের শুরুর দিকে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছিল। ওই সময় চিড়িয়াখানাটিতে থাকা আটটি এশিয়াটিক সিংহের করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছিল। তবে তামিলনাড়ুর কোনো চিড়িয়াখানায় প্রাণীদের শরীরে করোনা শনাক্ত ও মৃত্যুর ঘটনা এটাই প্রথম।

আপনার মন্তব্য লিখুন