গর্জনিয়ার বিএনপি হতাশ !

Presentation1-32.jpg

রামু প্রতিনিধিঃ
রামু উপজেলার গর্জনিয়া ইউনিয়ন বিএনপি’র কমর্কান্ড একেবারেই ঝিমিয়ে পড়েছে। যার ফলে দলীয় নেতা কর্মীদের মাঝে চরম ক্ষোভ ও হতাশা দেখা দিয়েছে। এক সময়ের রামু উপজেলার বিএনপি’র দুর্গ হিসেবে খ্যাত গর্জনিয়া ইউনিয়ন। বর্তমান সময়ে সঠিক সাংগঠনিক কর্মকান্ড পরিচালনার অভাবে এই দুর অবস্থা হয়েছে বলে জানান ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। সুত্রে জানা যায়, সাংগঠনিক কর্মকান্ডকে গতিশীল করার লক্ষ্যে দীর্ঘ ৯ মাস পুর্বে উপজেলা কমিটির নেতৃবৃন্দ আবদুল আলিমকে সভাপতি ও হাজী মুহিব্বুল্লাহকে সাধারণ সম্পাদক করে ৯ সদস্য বিশিষ্ট আংশিক কমিটি অনুমোদন দেন। সেই সময় কাল ধরে ইউনিয়ন কমিটি উল্লেখযোগ্য কোন সাংগঠনিক কার্যক্রম দেখাতে পারেনি। এ পর্যন্ত কোন ওয়ার্ড কমিটিও তারা গঠন করতে পারেনি বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীরা। এছাড়াও বর্তমান ৯ সদস্য বিশিষ্ট ইউনিয়ন কমিটিতে কোন ধরনের পরিবর্তনও করতে পারেনি এই কমিটি। বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক মুহিববুল্লাহ কক্সবাজার অবস্থান করায় ইউনিয়নে বিএনপির সাংগঠনিক কর্ম তৎপরতা চালাতে প্রতিনিয়ত চরম বাধাগ্রস্থ হচ্ছে বলে মত প্রকাশ করেন ক্ষুব্ধ বিএনপির তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। কারো কারো মতে, দীর্ঘদিন ইউনিয়ন কমিটির সভাপতির দায়িত্বে রয়েছে আবদুল আলিম ও মুহিব্বুল্লাহ। যার ফলে তাদের মধ্যে সাংগঠনিক কর্মকান্ডে এক প্রকার দায়সারা মনোভাব দেখা দিয়েছে। ৯জনের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকা কমিটি নিয়ে সম্ভাব্য রামু উপজেলা বিএনপি’র সম্মেলনকে সামনে রেখে ৯ মাস পর উপজেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ বর্ধিত সভা করতে গেলে উপস্থিতির সংখ্যা দেখে হতাশ হন নেতৃবৃন্দরা। পরবর্তীতে দলীয় রুটিন অনুযায়ী বর্ধিত সভায় অংশ নিতে রাজী হলেও উপস্থিতি ছিলো খুবই অসন্তুোষ জনক। ফলে ইউনিয়ন কমিটির সাংগঠনিক কার্যক্রমের ব্যার্থতার দায়ে কমিটি ভেঙ্গে দিতে চাইলে উপজেলা সম্মেলনকে সামনে রেখে সাংগঠনিক শৃংখলা রক্ষার্থে কোন মতে প্রোগ্রাম শেষ করে চলে আসেন। এদিকে রামু উপজেলা নেতৃবৃন্দ উপস্থিত বর্ধিত সভায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বক্তব্য দিতে গিয়ে বলেন, ১১ইউনিয়নে এই রকম কম নেতাকর্মীর উপস্থিতি নিয়ে কোন বর্ধিত সভা আমরা করি নাই। আমরা গর্জনিয়া ইউনিয়ন বিএনপি’র কাছে এধরনের বর্ধিত সভা কখনো আশা করিনি। নিশ্চয় এধরনের প্রোগ্রামে ইউনিয়ন নেতাকর্মীদের ব্যার্থতা এড়ানো যায়না।
এব্যাপারে গর্জনিয়া ইউনিয়ন যুবদল সভাপতি বলেন, বিএনপির বর্ধিত সভায় যুবদলের নেতাকর্মী উপস্থিত না থাকলে গর্জনিয়া ইউনিয়নের বর্ধিত সভা করাই যেতনা। বিএনপি আমাদের মূল সংগঠন, তারপরেও তাদের সাংগঠনিক কর্মকান্ড আমাদেরকেও হতাশ করেছে।
এব্যাপারে ইউনিয়ন সভাপতি আবদুল আলিম এর সাথে মুঠো ফোনে ০১৭৩৪২৭৮৯৮২ নাম্বারে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে সংযোগ না পাওয়ায় বক্তব্য দেওয়া সম্ভব হয়নি।

আপনার মন্তব্য লিখুন