করোনা নিয়ে টিকেএস’র প্রতারণার ফাঁদ, সতর্ক করল মন্ত্রণালয়

health-1.jpg

সারা দেশে করোনাভাইরাসের চিকিৎসার নামে টিকেএস হেলথকেয়ার লিমিটেড প্রতারণা করছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়। প্রতিষ্ঠানটি এই কাজের জন্য ইউনিয়ন পর্যায়ে জনবল নিয়োগের জন্য চেষ্টা চালাচ্ছে। অথচ এই ধরনের কোনো অনুমোদন তাদের দেওয়া হয়নি বলেও সতর্ক করেছে মন্ত্রণালয়।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় আজ মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে এবং প্রতিষ্ঠানটির প্রতারণা সম্পর্কে দেশবাসীকে সতর্ক করেছে।

গতকাল সোমবার থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি ‘পরিপত্র’ ছড়িয়ে পড়েছে। বলা হচ্ছে, এই পরিপত্রের মাধ্যমে টিকেএসকে করোনা চিকিৎসার সরঞ্জাম কেনা ও জনবল নিয়োগের জন্য অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় বলছে, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের উপসচিব জাকিয়া পারভীনের স্বাক্ষর কপি-পেস্ট করে এই পরিপত্রটি তৈরি করা হয়েছে। এটি মিথ্যা, ভুয়া এবং গুজব।

টিকেএস’র তথাকথিত পরিপত্রে বলা হয়েছে, ‘১১/০৭/২০২১ ইং তারিখের আবেদন সাপেক্ষে সারা দেশব্যাপী কোভিড-১৯ র‍্যাপিড টেস্টের সব সরঞ্জাম এবং দক্ষ জনবল নিয়োগ দিয়ে প্রাথমিকভাবে র‍্যাপিড কিট ডিভাইজ আসার পর টিকেএস হেলথকেয়ার লিমিটেডকে প্রত্যেকটি ইউনিয়ন পরিষদে কাজ শুরু করার জন্য অনুমোদন প্রদান করা হল।’

এটি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নজরে আসার পর পরই গণমাধ্যমে কাছে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠানো হয়। এ ধরনের গুজব ও প্রতারণা থেকে দেশবাসীকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রণালয় বলছে, করোনার ভয়াবহ মহামারিকে কাজে লাগিয়ে ফায়দা লুটার চেষ্টা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সিনিয়র সচিব লোকমান হোসেন মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, ‘অতিমারির দুঃসময়ে জাতি যখন করোনাভাইরাস প্রতিরোধে নিরলস লড়াই করে যাচ্ছে সেসময় এই পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে এক শ্রেণির অসাধু লোক অপতৎপরতা দেখাচ্ছে। মিথ্যা, বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে ফায়দা লুটে নিতে অপচেষ্টা করে যাচ্ছে।’

অতি দ্রুত এদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সিনিয়র সচিব।

আপনার মন্তব্য লিখুন