এবার সাহসী সিদ্ধান্ত নিলেন পরীমণি

image-148287-1633004249.jpg

‘আমি ভেঙে পড়ার মেয়ে না। ভেঙে পড়লেও তো উঠে দাঁড়াব। আমাকে যারা চেনেন, তারা জানেন, আমি কেমন। আমি এখন দ্রুত কাজে ফেরার অপেক্ষা করছি।’ জেল থেকে বেরিয়ে এমনটাই জানিয়েছিলেন চিত্রনায়িকা পরীমণি। তিনি কথা রেখেছেন।

 

তরুণ নির্মাতা ইফতেখার শুভর ‘মুখোশ’ দিয়ে চলচ্চিত্রের কাজে ফিরেছেন পরীমণি। এই চলচ্চিত্রের ডাবিং দিয়েই যাত্রা শুরু করেছেন প্রতিবাদী এই অভিনেত্রী। যুক্ত হয়েছেন গুণী নির্মাতা গিয়াস উদ্দিন সেলিমের ‘গুনিন’-এ। এর আগে একই নির্মাতার ‘স্বপ্নজাল’ সিনেমায় গ্ল্যামারাস নায়িকার খোলস পাল্টে অভিনেত্রী হিসেবে ধরা দিয়েছিলেন পরী।

এবার সাহসী এক সিদ্ধান্ত নিলেন পরীমণি। একটি সিনেমায় মায়ের চরিত্রে অভিনয় করবেন তিনি। টিভি পর্দার সফল নির্মাতা অরণ্য আনোয়ারের প্রথম সিনেমাতে মায়ের রূপে দেখা যাবে পরীকে। সিনেমাটির নামও দেয়া হয়েছে ‘মা’।

সত্য ঘটনা অবলম্বনে নিজের প্রথম সিনেমা বানাবেন অরণ্য আনোয়ার। ১৯৭১ সালে মৃত ঘোষিত ৭ মাস বয়সী এক সন্তানকে নিয়ে তার অসহায় মায়ের আবেগের ঘটনা দেখা যাবে সিনেমাটিতে। এতে সেই অসহায় মায়ের চরিত্রে থাকছেন পরীমণি।

নতুন সিনেমায় যুক্ত হওয়া প্রসঙ্গে পরীমণি বলেন, ‘এমন চরিত্রে আমি আগে কাজ করিনি। আমার তো মা নেই। এবার সেই মায়ের চরিত্রেই অভিনয় করবো। আশা করছি, নিজেকে ভাঙতে পারবো।’

 

অন্যদিকে নির্মাতা অরণ্য আনোয়ার বলেন, ‘মায়ের চরিত্রে অভিনয়ের জন্য পরীমণি রাজি হবেন কিনা, সেটা নিয়ে দ্বিধায় ছিলেন। তবে গল্প শুনে পরী মুগ্ধ হয়েছেন এবং সানন্দে রাজি হয়েছেন।’

গেলো বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাতে ‘মা’ সিনেমাটিতে লিখিতভাবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন পরীমণি। তবে চলতি বছর এই অভিনেত্রীর কোনো শিডিউল ফাঁকা নেই। তাই আগামী বছরের জানুয়ারিতে সিনেমাটির কাজ শুরু করবেন তিনি।

প্রকৌশলী পুলক কান্তি বড়ুয়া ও নির্মাতা অরণ্য আনোয়ারের যৌথ প্রযোজনায় ‘মা’ সিনেমাটিতে পরীমণি ছাড়া আর কে কে থাকছেন সেটি এখনো জানা যায়নি। তবে খুব শীঘ্রই অন্যান্যদের নাম প্রকাশ্যে আনা হবে বলে জানিয়েছেন নির্মাতা।

আপনার মন্তব্য লিখুন