বিবাহ বিচ্ছেদে ইতিহাস গড়লেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

boris.png
দ্বিতীয় স্ত্রী ম্যারিনা উইলারের সঙ্গে বরিস জনসন। দ্বিতীয় স্ত্রী ম্যারিনা উইলারের সঙ্গে বরিস জনসন।

ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী থাকা অবস্থায় বিবাহ বিচ্ছেদ করে ইতিহাস গড়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। দ্বিতীয় স্ত্রী ম্যারিনা উইলারের সঙ্গে বিচ্ছেদ ঘটিয়ে এই ইতিহাস গড়েছেন বরিস জনসন।

এখন থেকে আড়াইশ’ বছর আগে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী থাকা অবস্থায় বিবাহ বিচ্ছেদের ঘটনা ঘটেছিল। ১৭৬৯ সালে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে অগাস্টাস ফিটজরয় স্ত্রীকে ডিভোর্স দিয়েছিলেন বলে সংবাদ প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের প্রথম স্ত্রী ছিলেন অ্যালেগ্রা মোস্টাইন আওয়েন। ১৯৯৩ সালে প্রথম স্ত্রী আওয়েনের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ হয়। বিচ্ছেদের মাত্র ১২ দিনের মধ্যে ম্যারিনা উইলারকে বিয়ে করেন বরিস।

বরিস-উইলারের ঘরে দুই ছেলে ও দুই মেয়ে রয়েছে। ২০১৮ থেকে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল। ২ বছর পর তা শেষ হলো।

ম্যারিনার বাবা একজন ব্রিটিশ সাংবাদিক এবং মা ভারতীয় বংশোদ্ভূত। ইউরোপিয় এক স্কুলে একসঙ্গে পড়াশোনা করেছিলেন বরিস ও উইলার। উইলারের সঙ্গে ডিভোর্সের ফলে এবার প্রেমিকা তথা বাগদত্তা ক্যারি সাইমন্ডসকে বিয়ের রাস্তায় কোনো বাধা রইল না জনসনের।

গত ২৯ এপ্রিল লন্ডনের এক হাসপাতালে ছেলের জন্ম দিয়েছেন বরিস জনসনের প্রেমিকা ক্যারি। প্রসঙ্গত, বরিস জনসনের আরও পাঁচ সন্তান রয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন
Top