শরীর ঝলসে দিয়ে দুই দিন আটকে রাখা হয় গৃহকর্মীকে

prothomalo_import_media_2019_04_29_b43717e8ae9cbfdeadc5f5a67a19fa57-5cc6c9d5143bd.jpg

জাতীয় জরুরি সেবার ‘৯৯৯’ নম্বরে ফোন পেয়ে রাজধানীর উত্তরার একটি বাসা থেকে এক গৃহকর্মীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিয়াসা আক্তার (১৮) নামের ওই গৃহকর্মীর ঘাড় ও পিঠ ঝলসে দেওয়া হয়েছে।

ফুটন্ত ভাতের মাড় ঢেলে তাঁর শরীর ঝলসে দেওয়া হয় বলে পুলিশ জানিয়েছে। এ ঘটনায় গৃহকর্তার মেয়ে তাজিনা আক্তারকে আটক করা হয়েছে।

পুলিশের উত্তরা বিভাগের উপকমিশনার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম শুক্রবার রাতে প্রথম আলোকে বলেন, নিয়াসা এক বছর ধরে উত্তরা ৯ সেক্টরের ওই বাসায় কাজ করছেন। গত বুধবার দুপুরে ভাত রান্না করতে দেরি হওয়ায় গৃহকর্তার মেয়ে শিক্ষানবিশ আইনজীবী তাজিনা সৌরভ তাঁর ওপর খেপে যান। একপর্যায়ে তাজিনা চুলায় বসানো পাতিল থেকে ভাতের মাড় নিয়াসার পিঠে ঢেলে দেন।

এতে নিয়াসার ঘাড় ও পিঠ ঝলসে যায়। কিন্তু তাঁকে কোনো চিকিৎসা করানো হয়নি। আজ বিকেলে নিয়াসা জাতীয় জরুরি সেবা ‘৯৯৯’ নম্বরে ফোন দিয়ে তাঁকে উদ্ধারের আকুতি জানান। এ খবর পেয়ে উত্তরা পশ্চিম থানার পুলিশ তাজিনাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। একই সঙ্গে নিয়াসাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

নিয়াসা এখন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান–স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) চিকিৎসাধীন। ওসিসির সমন্বয়ক চিকিৎসক বিলকিস বেগম জানিয়েছেন, ঘাড় ও পিঠে দগ্ধ নিয়াসাকে প্রথমে শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়। পরে সেখান থেকে ওসিসিতে পাঠানো হয়েছে।

তাজিনার বিরুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা হচ্ছে বলে উপকমিশনার সাইফুল ইসলাম জানিয়েছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন