মসজিদে নামাজরত পাঁচ মুসল্লিকে কুপিয়ে জখম!

48374944_2231012990255885_5444900499801243648_n-12.jpg

নিউজ ডেস্ক।।

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে মসজিদে নামাজরত পাঁচ মুসল্লিকে কুপিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। গত রোববার রাতে উপজেলার কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়নের আর্দশপাড়া গ্রামের খেয়াঘাট জামে মসজিদে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে স্বজনরা আহতদের উদ্ধার করে রাতেই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। পরে নীল মিয়া নামের একজনকে গুরুতর অবস্থায় ঢাকায় পাঠানো হয়।

অন্য আহতরা হলেন নীল মিয়ার ভাই ইসমাঈল মিয়া, একই এলাকার আল বাহার মিয়ার ছেলে সফিক, সাঈদ মিয়ার ছেলে লিয়াকত মিয়া ও আব্দুল হেলিম মিয়ার ছেলে মুসলিম মিয়া। তাদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

সোমবার স্থানীয়রা জানান, পূর্ব শত্রুতার জেরে গতকাল রাতে ওই মসজিদে এশার নামাজ আদায়রত মুসল্লিদের ওপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আক্রমণ চালানো হয়। এ সময় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে পাঁচ মুসল্লি আহত হন।

প্রতক্ষ্যদর্শী মুসল্লি মহরম আলী বলেন, ‘এশার আজানের পর নামাজ আদায়ের জন্য মসজিদে যাই। নামাজ শুরু হওয়ার পর হঠাৎ আদর্শপাড়ার একরাম হোসেনের বাড়ির শিকদার, জসিম, আজগর, আক্কেল আলীসহ কয়েকজন রামদা দিয়ে কোপাতে থাকে। এ সময় তাদের চিৎকারে মসজিদের মুসল্লিরা নামাজ ছেড়ে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।’

ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. ফেরদৌস হায়দার জানান, আহতদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে এলে তাৎক্ষণিক তাদের জরুরি চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত নীল মিয়াকে প্রাথমিক সেবা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ভৈরব থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. বাহালুল খান বাহার জানান, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগও পাওয়া গেছে। সেটি প্রক্রিয়াধীন আছে। এরই মধ্যে দোষীদের গ্রেপ্তারে মাঠপর্যায়ে পুলিশী অভিযান অব্যাহত আছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন