ভারী বর্ষণে টেকনাফের গ্রামীণ সড়ক লন্ডভন্ড

Presentation1-13.jpg

মুহাম্মদ জুবাইর, টেকনাফ :
ভারী বর্ষণে টেকনাফ উপকূল ও নিম্নাঞ্চলে এখন অথৈই পানি। বৃষ্টির পানিতে তলিয়ে গেছে নিম্নাঞ্চল ও লন্ডভন্ড গ্রামীণ সড়ক। অপরদিকে বিভিন্ন এলাকার কোথাও হাটু পানি আবার কোথাও কোমর সমান পানি জমে জলাবদ্ধ সৃষ্টি হয়। অনেকের বসতঘরে পানি ঢুকেছে। এলাকার ঘরে ঘরে বৃষ্টির পানি ঢুকেছে।ফলে মানুষ পড়েছে নিদারুণ কস্টে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শনিবার দিবাগত মধ্যরাত থেকে রবিবার বিকাল পর্যন্ত ভারী বর্ষনের কারণে উপকূল ও নিম্নাঞ্চল অথৈই পানির নিচে তলিয়ে যায়। মহেশখালীয়া পাড়ার আবদুর রহমান ও তুলাতলী এলাকার মিনারা জানান কোন বছরই তার বাসায় বর্ষা কালে পানি প্রবেশ করেনি।এবার একদিনের বৃষ্টিতে ঘরে পানি ঢুকেছে। আসবাবপত্র সব ঢুবে গেছে। আমাদের কষ্টের কি আর শেষ আছে?

তিনি বলেন, মাত্র বর্ষা কাল শুরু। সামনে আমাদের কি দুর্গতি আছে আল্লাহ ভালো জানেন।
এদিকে ভারী বর্ষনে বৃষ্টির পানি বেড়ে বেড়ে যাওয়ায় টেকনাফ সদরের ৩নং ওয়ার্ড এলাকার ঘুমতলি- জাহাঁলিয়া পাড়ার প্রধান সড়কের মাটি সরে গিয়ে সড়কটি দেবে যায়।
স্থানীয়রা জানায়, এমনিতেই গত কয়েকদিনের থেমে থেমে হালকা বৃষ্টিতে ভিটা ও চাষাবাদ জমি পানির নিচে তলিয়ে রয়েছে শনিবার মধ্যরাত থেকে আজ রবিবার বিকাল পর্যন্ত ভারী বর্ষনে রাস্তাঘাট পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি এলাকার অধিকাংশ বাসায় পানি ঢুকেছে।আগে হাটু পরিমান পানি থাকলে ও দিনের বৃষ্টিতে রাস্তায় ও ভিটে জমিতে কোমর পর্যন্ত পানি।ফলে ওইসব এলাকার মানুষ এলাকা থেকে বের হতে ও পারছেনা। পরিবার পরিজন নিয়ে চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে তারা।
তিনি আরো জানান,মাত্র বর্ষাকাল শুরু এখনি একদিনের বৃষ্টিতে পানিবদ্ধ হয়ে পড়ছি আমরা। বর্ষাকালের বাকি সময়টা নিয়ে আমরা শংকিত।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, টেকনাফ সদরের মহেশখালীয়া পাড়া, জাহাঁলিয়া পাড়া, ও সাবরাংয়ের শাহপরীরদ্বীপ প্রায় এলাকা জলবদ্ধতার কবলে পড়েছে মানুষ।
টেকনাফ সদর ৩নং ওয়ার্ডের স্থানীয় মেম্বার শাহ আলম জানান, বৃষ্টির পানিতে দাবিয়ে যাওয়া সড়কটটি তাৎক্ষণিক বালির বস্তা দিয়ে রক্ষা বাঁধ দেওয়া হয়েছে। শীঘ্রই সড়কটি পুনঃসংস্কারের জন্য উর্ধতন মহলের কাছে জানানো হয়েছে বলে ও জানান ইউপি মেম্বার।

আপনার মন্তব্য লিখুন