বায়তুশ শরফে ৪ দিনের ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) শুরু ১৮ নভেম্বর

FB_IMG_1542391852698.jpg

দিসিএম ডেস্ক।

বায়তুশ শরফ আন্জুমানে ইত্তেহাদ বাংলাদেশের উদ্যোগে পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উপলক্ষে তামাদ্দুনিক প্রতিযোগিতা, গুণীজন সংবর্ধনা ও আজিমুশ্শান ওয়াজ মাহফিলসহ চার দিনব্যাপি বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানমালা আগামী রবিবার (১৮ নভেম্বর) শুরু হবে।
মিলাদুন্নবীকে (সা.) সামনে রেখে এবারও প্রকৌশল শিক্ষা, ব্যাংক, ইসলামী শিক্ষা ও আর্ত মানবতার কল্যাণে বিশেষ অবদান রাখায় চার গুণী ব্যক্তিকে সংবর্ধনা প্রদান করা হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্সের ইসলামী গবেষণা কেন্দ্রে এক সংবাদ সম্মেলনে বায়তুশ শরফের পীর বাহরুল উলুম শাহ্ সুফী হয়রত মাওলানা মুহাম্মদ কুতুব উদ্দিন একথা জানান। সংবাদ সম্মেলনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বায়তুশ শরফ কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. সাইয়্যেদ মুহাম্মদ আবু নোমান। বক্তব্য রাখেন ঈদে মিলাদুন্নবী (স.) উদযাপন কমিটির আহবায়ক রফিক আহমদ, হাফেজ মোহাম্মদ আমান উল্লাহ, নয়াদিগন্ত পত্রিকার চট্টগ্রাম ব্যুরো

চিফ নুরুল মোস্তফা কাজী, সাংবাদিক সাইফুল আলম, সাংবাদিক আইয়ুব আলী, বাংলাদেশ ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, বৈশাখী টিভির নাইমুল ইসলাম।
মাসিক দ্বীন দুনিয়ার সম্পাদক মুহাম্মদ জাফর উল্লাহ’র সঞ্চালনায় সভাপতির পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক আবুল হায়াত মুহাম্মদ তারেক। অনুষ্ঠানে কোরআন তেলাওয়াত করেন মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা কারী মুহাম্মদ বেলাল উদ্দিন ও নাত পরিবেশন করেন মাওলানা আব্দুশ সাকুর।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এবারের কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে পাখ-পাখালির আসর, নবীজীর শানে না’ত গজল অনুষ্ঠান ‘শানে মোস্তফা’, জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অবদানের জন্য চারজন গুণী ব্যক্তিকে সংবর্ধনা প্রদান, শেষ দিন আজিমুশশান ওয়াজ ও মিলাদ মাহফিল।
মাওলানা মোহাম্মদ কুতুব উদ্দিন (ম.জি.আ.) বলেন, ১৯৯৪ সাল থেকে ঈদে মিলাদুন্নবী (স.) উপলক্ষে চারদিনব্যাপী তামাদ্দুনিক প্রতিযোগিতাসহ কিছু নান্দনিক অনুষ্ঠান উদযাপন করে আসছে। এর ধারাবাহিকতা যুগ যুগ ধরে অব্যাহত থাকবে।
তিনি বলেন, এবার চার গুণীব্যক্তিকে সংবর্ধনা ও বায়তুশ শরফ স্বর্ণ পদক দেওয়া হবে। এরমধ্যে ইসলামী শিক্ষার প্রচার-প্রসার ও ধর্মীয় ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ কুমিল্লার লাকসাম দৌলতগঞ্জ গাজীমুড়া কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আ.ন.ম তাজুল ইসলাম, প্রকৌশল শিক্ষা, প্রশাসনিক ক্ষেত্র ও ব্যাংকিং খাতে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন ও সামাজিক উন্নায়নে অবদান রাখায় বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংকের চেয়ারম্যান ড. ইঞ্জিনিয়ার রশীদ আহমদ চৌধুরী, ইসলামী সংস্কৃতি বিকাশ, শিক্ষার সম্প্রসারণ এবং আর্তমানবতার সেবার মাধ্যমে অগণিত মানুষের কল্যাণে বিশেষ অবদান রাখায় এম কে আর গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আবদুল আউয়াল এবং চিকিৎসা সেবার মাধ্যমে মানবতার কল্যাণের জন্য লোহাগাড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ট্রমা ও অর্থোপেডিক সার্জন ডা. মাহমুদুর রহমান।
পরে চারদিনব্যাপী অনুষ্ঠানের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করে বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা মুহাম্মদ কুতুব উদ্দিন।

আপনার মন্তব্য লিখুন