বরগুনার ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই নারায়ণগঞ্জে ফের স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টা

Screenshot_2019-06-29-16-08-25-217_com.facebook.katana.jpg

দিসিএম ডেস্ক : বরগুনায় স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে খুন করার রেশ কাটতে না কাটতেই নারায়ণগঞ্জের বন্দরে ফের স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে।
এ ঘটনায় এলাকাবাসীর সাহসী ভূমিকার কারণে রং মিস্ত্রী স্বামী শাহিন (৪২) প্রাণে বেঁচে যান। তবে হামলাকারী আমজাদ বাহিনীর লোকজন পালিয়ে যায়। আহত অবস্থায় শাহীনকে উদ্ধার করে দ্রুত নারায়ণগঞ্জ হাসপাতালে পাঠায় এলাকাবাসী।
বন্দর উপজেলার বক্তারকান্দি এলাকায় শুক্রবার (২৮ জুন) সকালে এ ঘটনা ঘটে।
পরবর্তীতে রাতে আবার আমজাদ বাহিনী শাহীনের আত্মীয় আমিরাবাদ এলাকার মৃত হারুন অর রশিদের ছেলে আকবর হোসেন (৫০) ও তার ভাই রুবেলকে (২৫) ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করা হয়। আহতদের মধ্যে আকবর হোসেনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এদিকে খবর পেয়ে আমজাদের ভাই আলতাফ হোসেনকে গ্রেফতার ও ঘটনাস্থল থেকে ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। আমজাদ একজন তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী বলে পুলিশ জানায়।
জানা যায়, বন্দরের নাসিক ২৪নং ওয়ার্ডের বন্দরের বক্তারকান্দি এলাকার মৃত লাল চাঁন মিয়ার ছেলে আমজাদের বিরুদ্ধে প্রায় ৩ বছর আগে নারী নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন বন্দরের বক্তারকান্দি এলাকার গিয়াসউদ্দিনের ছেলে শাহীনের স্ত্রী ববি। এ নিয়ে শাহীন ও তার স্ত্রীর প্রতি ক্ষুব্দ ছিল আমজাদ।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, শুক্রবার সকালে আমজাদ তার ছেলে আপন, হৃদয় ও ভাগিনা শফিক রং মিস্ত্রি শাহীনকে রাস্তায় একা পেয়ে গালিগালাজ করে। এ খবর পেয়ে শাহীনের স্ত্রী ববি স্বামীকে ফিরিয়ে নিতে রাস্তায় চলে আসেন। এ সময় আমজাদ ও তার ছেলেরা স্ত্রীর সামনেই শাহীনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে।
খবর পেয়ে বন্দর থানার পুলিশ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী ঘটনাস্থলে আসেন এবং আমজাদের বইয়ের দোকান থেকে ২টি এসএস পাইপ উদ্ধার করে। পুলিশ আসার সংবাদ পেয়ে আমজাদ ও তার ছেলেরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।

এলাকাবাসী জানায়, সন্ত্রাসী আমজাদ রং মিস্ত্রি শাহীনের বিয়েতে উকিল হয়। এর সূত্র ধরে সে উকিল মেয়ে ববির বাসায় আসা যাওয়া করত। এক পর্যায়ে উকিল মেয়ের ওপর তার কুনজর পড়ে। সে রং মিস্ত্রি শহীনের স্ত্রী ববিকে জোর পূবর্ক ধর্ষণ করে। এ ধর্ষণের ঘটনায় আমজাদের বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন আইনে মামলা হয়। এ মামলায় আমজাদ কয়েকদিন জেল খাটে। এর জের ধরে আমজাদ ও তার ছেলেরা শুক্রবার শাহীনকে তার স্ত্রীর সামনে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করে।

এ ব্যাপারে বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, আমজাদসহ তার ছেলের বিরুদ্ধে মামলা নেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে আজমাদের ভাইকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আসামিদের ধরতে পুলিশ অভিযান চালানো হচ্ছে।আশা করি দ্রুত সময়ের মধ্যে আসামীদের গ্রেফতার করা সম্ভব হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন