চট্টগ্রামে থানা হেফাজতে যুবকের মৃত্যু

image-96710-1538495978.jpg

অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামে পুলিশ হেফাজতে মো. সাইফুল (২৬) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর পাঁচলাইশ থানা হেফাজতে এ ঘটনা ঘটে। তবে পুলিশের দাবি, মুরাদপুর এলাকায় ছিনতাই করতে গিয়ে গণপিটুনির শিকার হয় ওই যুবক। স্থানীয় লোকজন তাকে পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। পরে পুলিশ হেফাজতে থাকা অবস্থায় তিনি মারা যান।

পুলিশের দাবি, থানা হেফাজতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সাইফুল। এ সময় সে গুরুতর আহত হলে হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নিহতের বিস্তারিত পরিচয় জানাতে পারেনি পুলিশ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, সাইফুল পুলিশ হেফাজতে মারা যাওয়ার আগে জানিয়েছে, তার বাবার নাম মৃত সৈয়দ, গ্রামের বাড়ি ভোলার দৌলতখান এলাকায়। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ওই ঠিকানা নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ।

পুলিশের ধারণা, ঠিকানাটা মিথ্যাও হতে পারে। কারণ ধরা পড়ার পর সহজে সঠিক নাম-ঠিকানা ছিনতাইকারীরা পুলিশকে বলে না।

চট্টগ্রাম নগর পুলিশের উপকমিশনার (উত্তর) বিজয় বসাক বলেন, ‘মঙ্গলবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে মুরাদপুর মোড়ে মোবাইল ফোন ছিনতাইকালে স্থানীয় জনতা সাইফুলকে ধরে পিটুনি দেয়। পরে টহল পুলিশ তাকে উদ্ধার করে সোয়া ১২টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়।

তিনি বলেন, সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে দুপুর ১টার দিকে তাকে পাঁচলাইশ থানাহাজতে নিয়ে আসা হয়। এরপর হাজতের ভেতর থাকা কম্বল ছিঁড়ে সে দড়ির মতো তৈরি করে। সেই দড়ি হাজতের ভেন্টিলেটরের সঙ্গে ঝুলিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়।

উপকমিশনার (উত্তর) বিজয় বসাক বলেন, দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা বিষয়টি দেখতে পেয়ে তাকে উদ্ধার করে দ্রুত চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে সে চিকিৎসাধীন ছিল। তবে আড়াইটার দিকে সে মারা যায়। তার লাশ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন