‘ক্ষতিপূরণের টাকা নিতে গিয়ে হয়রানি শিকার হচ্ছে নাগরিকরা’

Cox-Pic_1.jpg

নিজস্ব প্রতিবেদক
কক্সবাজারে ভূমিহীনদের জীবন জীবিকা সুরক্ষায় নাগরিক সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (৩০ অক্টোবর) সকালে শহরের বাসটার্মিনাল সংলগ্ন হর্টিকালচার সেন্টারের কনফারেন্স হলে সংলাপে কক্সবাজারের মাতারবাড়ীতে চলমান তাপভিত্তিক কয়লাবিদ্যুৎ প্রকল্পে ক্ষতিগ্রস্তদের সঠিকভাবে ক্ষতিপূরণের টাকা না দেওয়ার কথা ওঠে আসে। এছাড়া আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, রেললাইনসহ বিভিন্ন প্রকল্পের জন্য অধিগ্রহণকৃত জমির মালিকরা তাদের ক্ষতিপূরণের টাকা নিতে গিয়ে জেলা ভূমি অধিগ্রহণ শাখায় নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছে বলে আলোচনা করা হয়।
ইয়ং পাওয়ার ইন সোশ্যাল এ্যাকশান-ইপসার আয়োজনে এই নাগরিক সংলাপে ভূমিহীন নাগরিকদের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠার জোর দাবী তুলা হয়। সেই লক্ষ্যে সংলাপ শেষে ১৭ সদস্য বিশিষ্ট ‘জনসুরক্ষা মঞ্চ কক্সবাজার’ গঠিত হয়। যেটি একটি ‘বার্গেডিং ফোরাম’ হিসেবে কাজ করবে।
ইপসার প্রধান নির্বাহী মো. আরিফুর রহমানের সভাপতিত্বে এ্যাকশান এইডের সার্বিক সহায়তায় সংলাপে অংশগ্রহণ করেন- কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের নারী ভাইসচেয়ারম্যান হেলেনাজ তাহেরা, কক্সবাজার পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর এসআইএম আকতার কামাল আজাদ, কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের নারী ও শিশু দমন ট্রাইব্যুনালের সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) এডভোকেট সাকী-এ-কাউছার, এ্যাকশান এইডের ব্যবস্থাপক শমশের আলী, ইপসার পরিচালক (অর্থনৈতিক উন্নয়ন) মনজুর মোরশেদ চৌধুরী, কক্সবাজার নিউজ নিউজ ডট কম (সিবিএন) এর বার্তা সম্পাদক ও দৈনিক সাঙ্গু পত্রিকার কক্সবাজার জেলা প্রতিনিধি ইমাম খাইর, ইপসার ফোকাল পার্সন মো. হারুন, দৈনিক কক্সবাজারের সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার মাহবুবুর রহমান, সাংবাদিক আমিনুল হক, সাহাব উদ্দিন, এম. বশির উল্লাহ, জিকির উল্লাহ জিকু, হোবাইব সজীব, মহেশখালীর জাকের হোসাইন, মাতারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের হামিদ হোসাইন মেম্বার, সরওয়ার কামাল মেম্বার, নারী সদস্য শকুন তাজ প্রমুখ।
সংলাপে অংশগ্রহণকারীদের কাছ থেকে ‘বাংলাদেশ জনসুরক্ষা নীতি (খসড়া)’-এর উপর মতামত নেয়া হয়।
ইপসার ‘ভূমিহীন জনগোষ্ঠীর জীবন-জীবিকা’ প্রকল্পের ব্যবস্থাপক এম. আজিজুল হকের সার্বিক তত্ত্বাবধানে নাগরিক সংলাপ সঞ্চালনায় ছিলেন ইপসার কর্মকর্তা মো. ইউছুপ। এতে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
অর্ধদিনব্যাপী এই সংলাপে জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, আইনজীবী, এনজিও প্রতিনিধি, মানবাধিকার সুরক্ষাকর্মী, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের সদস্যসহ বিভিন্ন স্তরের পেশাজীবীরা অংশ গ্রহণ করেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন