কালারমারছড়ার সেলিম বাহিনী কর্তৃক মাছ মার্কার গণংযোগে হামলার অভিযোগ

Presentation1-43.jpg

মহেশখালী সংবাদদাতা :

মহেশখালী কুতুবদিয়া আসনের গণফ্রন্ট প্রার্থী প্রফেসর ড. আনসারুল করিমের মাছ মার্কার সমর্থনে এক মত বিনিময় সভা ১৩ ডিসেম্বর মহেশখালী প্রেসক্লাবে অনুষ্টিত হয়েছে। এ সময় তিনি সাংবাদিকদের গুরুত্বপূর্ন বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন। এ সভায় তিনি বলেন, ১২ ডিসেম্বর মহেশখালীর কালারমারছড়ার নুনাছড়ি বাজারে মাছ মার্কার সমর্থনে গণসংযোগ কালে স্থাণীয় সেলিম বাহিনীর প্রধান সেলিম চৌধুরী নিজে ও তার দলবল নিয়ে প্রফেসর ড. আনসারুল করিমের কর্মী সমর্থকদের উপর হামলা চালায়। এ সময় তারা প্রকাশ্যে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে । তিনি আরো অভিযোগ করে বলেন, মহেশখালীর জনগণের অধিকার আদায়ের কথা ও তৃণমূল আওয়ামীলীগের দাবীর পরিপ্রেক্ষিতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজবিুর রহমান ও জননেত্রী শেখ হাসিনার আর্দশের প্রতি আস্তা রেখে প্রার্থী হয়েছি। আমি নির্বাচনের প্রার্থী হয়েছি বলে বর্তমান সাংসদ ও পুলিশ আমার নির্বাচনী আগমনে ঈশ^ান্বিত হয়ে মহেশখালীর বিভিন্ন সড়কে গাড়ী চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। মহেশখালীর সড়কে বেরীকেড দিয়ে শান্ত পরিবেশ কে অশান্ত করার চেষ্টা করেন। তিনি আরো বলেন, আমি মহেশখালীর সন্তান হিসাবে দীর্ঘদিন শিক্ষকতা কালীন সময়ে এ শিক্ষার উন্নয়নে বিভিন্ন জায়গায় কাজ করেছি। মহেশখালী কুতুবদিয়াকে মাদক মুক্ত সন্ত্রাস মুক্ত, আধুনিক মহেশখালী ও কুতুবদিয়া গডে তোলার লক্ষে আমি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মাছ প্রতিক নিয়ে নির্বাচনে অংশ্র গ্রহণ করছি।

এ সময় তিনি আরো বলেন, মহেশখালী কুতুবদিয়ায় জনগণের ¯্রােতকে বাধা প্রদান করে দমানো যাবেনা। তিনি এ ব্যাপারে প্রশাসন কে আন্তরিক ভূমিকা নেওয়ার জন্য আহবান জানান। মহেশখালী প্রেসক্লাবে মত মিনিময় কালে অন্যন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহেশখালী পৌরসভার সাবেক মেয়র সরওয়ার আজম বিএ, মহেশখালী কলেজের প্রভাষক মোস্থফা কামাল সোহাগ।

আপনার মন্তব্য লিখুন